• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ মহররম ১৪৪২, ০৯ আশ্বিন ১৪২৭

‘করোনাভাইরাস এখনও বিশ্ব মহামারী নয়’

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

চীন থেকে নতুন করোনাভাইরাস সংক্রমণ বিশ্বের ২০টিরও বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়লেও পরিস্থিতি এখনও বিশ্ব মহামারীতে রূপ নেয়নি বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) হু। জাতিসংঘের আওতাধীন এ সংস্থাটির মতে, একই সময়ে যখন বিশ্বজুড়ে অসংখ্য মানুষ কোন সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হন, তখনই তাকে বিশ্ব মহামারী বলা যায়। রয়টার্স।

বার্তা সংস্থাটির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্ব মহামারীর সাম্প্রতিক একটি উদাহারণ হচ্ছে ২০০৯ সালের সোয়াইন ফ্লু। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, ওই মহামারীতে বিশ্বজুড়ে কয়েক লাখ মানুষ মারা গেছেন। যেহেতু করোনাতে বিশ্বজুড়ে নয়, শুধু হুয়ানের মতো একটি প্রদেশেই অধিকাংশ প্রাণহানির ঘটনা ঘটছে তাই একে ঠিক বিশ্ব মহামারী বল যায় না।

পরিস্থিতি আয়ত্বে আছে : করোনাভাইরাস দ্রুত ছড়াচ্ছে একথা ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞরাও স্বীকার করেছেন। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনার বর্তমান প্রকোপ এখনও বিশ্ব মহামারীতে রূপ নেয়নি। ভাইরাসটিতে অন্তত ৪২৭ জন মানুষ মারা গেছেন এবং বিশ্বব্যাপী ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। তবে এর বেশিরভাগই ঘটেছে চীনে। নিহত ও আক্রান্তের সংখ্যা বেইজিংয়ের বাইরে খুবই কম, মাত্র দু’জন।

২০টির বেশি দেশে মানুষের করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও আফ্রিকা এবং ল্যাটিন আমেরিকাজুড়ে এখনো করোনাভাইরাস সংক্রমণের কোন খবর আসেনি। সংক্রমণের হার এশিয়ার দেশগুলোর ক্ষেত্রে ঘটতে দেখা যাচ্ছে বেশি। তাছাড়া, করোনাভাইরাসে চীনে ৪২৫ জন মারা গেলেও চীনের বাইরে শুধু হংকং এবং ফিলিপিন্সে দু’জনের মৃত্যুর খবর এসেছে। ফলে বর্তমান পরিস্থিতি এখনও আয়ত্বের মধ্যে আছে এবং এ প্রাণঘাতী ভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব বলেই মত প্রকাশ করেছেন ডব্লিউএইচও’র গ্লোবাল ইনফেকশাস হ্যাজার্ড প্রিপেয়ার্ডনেস ডিভিশনের প্রধান সিলভি ব্রায়ান্ড।

বিশ্ব মহামারী ঘোষণা করা হয় কখন : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) কোন সংক্রমণকে বিশ্ব মহামারী ঘোষণার আগে কিছু ধাপ আছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ যেভাবে ছড়িয়েছে তাতে এটি এখনও বিশ্ব মহামারী ঘোষণার এক ধাপ নিচে আছে। করোনাভাইরাস মানুষ থেকে মানুষে ছড়াচ্ছে এবং চীনের প্রতিবেশী দেশগুলোসহ দূরের দেশেও এর বিস্তার ঘটছে। যদি বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে অঞ্চলে বহু মানুষের মধ্যে এর বিস্তার ঘটতেই থাকে তাহলে তখন সেটিকে ‘বিশ্ব মহামারী’ ঘোষণা করা যাবে।

এ আশঙ্কা কতটা : করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কতটা মারাত্মক এবং কতদূর পর্যন্ত তা ছড়াতে পারে, তা এখনও পরিষ্কার নয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ড. টেড্রোস অ্যাডহ্যানম গেব্রেইয়েসাস বলেছেন, চীনের বাইরে করোনাভাইরাসের বিস্তার এখনও সীমিত আকারে এবং ধীরগতিতে ঘটছে। এ পর্যন্ত প্রায় ১৭ হাজার মানুষ করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়েছেন।

তাদের বেশিরভাগই চীনে। চীনের বাইরে সংক্রমিত হয়েছেন ১৫০ জন। টেড্রোস গেব্রেইয়েসাস বলেন, যে চীন থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে সেখানেই এটি মোকাবিলা করা গেলে অন্য দেশে এটি কম ছড়াবে, বা ধীর গতিতে ছড়াবে। প্রতিটি মহামারীরই ধরন ভিন্ন। কাজেই একটা ভাইরাস ছড়িয়ে না যাওয়া পর্যন্ত এর পুরো প্রভাব অনুমান করা কঠিন। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, সাম্প্রতিক আরও অনেক রোগ, যেমন সার্সের চেয়েও করোনাভাইরাস কম প্রাণঘাতী হতে পারে।