• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭ ২৯ শাবান ১৪৪২

হংকংয়ে করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যু

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , বুধবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

চিকিৎসা কর্মীদের একটি অংশের ধর্মঘটের মধ্যে হংকংয়ে নভেল করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার ভাইরাসটির তীব্র সংক্রমণে আক্রান্ত ৩৯ বছর বয়সী এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। মৃত ওই ব্যক্তি জানুয়ারিতে উহান শহরে ঘুরতে গিয়েছিলেন। এই নিয়ে প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে চীনের বাইরে মোট দুইজনের মৃত্যু হলো। রয়টার্স।

করোনা ইস্যুতে ‘অবহেলা ও ঘাটতি’ স্বীকার চীনের

সংবাদ সংস্থাটির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৪৪ বছর বয়সী চীনা ব্যক্তি উহান থেকে হংকং হয়ে ফিলিপিন্সে যাওয়ার পর রোগে ভুগে সেখানেই মারা যান। এ পর্যন্ত নভেল করোনাভাইরাসে ১৫ জনের আক্রান্ত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে হংকং, এদের মধ্যে একজনের সংক্রমণ স্থানীয়ভাবে ঘটেছে। মঙ্গলবার চীনে নতুন করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪২৫ জনে, নতুন ৩২২৫ জনের মধ্যে এ ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৪৩৮ জনে। চীনের বাইরে কমপক্ষে ২৫টি দেশ ও অঞ্চলে কমপক্ষে ১৫১ জনের দেহে এ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ছে।

এদিকে চীনের সঙ্গে সীমান্ত পুরোপুরি বন্ধসহ পাঁচটি দাবিতে ধর্মঘট করছে হংকংয়ের চিকিৎসা কর্মীদের একটি অংশ। নবগঠিত হসপিটাল অথরিটি এমপ্লয়িজ অ্যালায়েন্স (এইচএইএ) সোমবার থেকে এ ধর্মঘট শুরু করেছে। তাদের ১৮ হাজার সদস্যের মধ্যে দুই হাজার ৭০০ সদস্য ধর্মঘটে অংশ নিচ্ছে বলে জানিয়েছে এইচএইএ। সরকারের কাছে তাদের জানানো দাবিগুলো হলো- মূলভূখ- চীনের সঙ্গে সীমান্ত পুরোপুরি বন্ধ করা, জনগণের মধ্যে মাস্ক বিতরণ সহজ করা, সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে থাকা মেডিকেল কর্মীদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা ও সরবরাহ নিশ্চিত করা, রোগীদের জন্য যথেষ্ট পৃথক ওয়ার্ডের ব্যবস্থা করা এবং ধর্মঘটে অংশ নেয়া মেডিকেল কর্মীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নেয়ার নিশ্চয়তা।

অপরদিকে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় প্রথমবারের মত অবহেলা ও ঘাটতির কথা স্বীকার করেছে চীনের শীর্ষ নেতৃত্ব। সোমবার দেশটি ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির পলিটব্যুরো স্টান্ডিং কমিটির এক বৈঠকে একথা স্বীকার করে বেইজিং। বৈঠকে দেশের জাতীয় জরুরি ব্যবস্থাপনায় উন্নতি ঘটাতে হবে বলে জানান তারা। এছাড়া ভাইরাসের উৎপত্তিস্থলে বণ্যপ্রাণীর বাজারে অভিযান চালানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সংবাদ সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে বলেছে, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশটিতে সোমবার নাগাদ ৪২৫ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছে বেইজিং। আক্রান্ত হয়েছে ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ। সরকারি হিসেবে সোমবার একদিনেই মৃত্যু হয়েছে ৬৪ জনের। চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন বলছে, এদের সবাই হুবেই প্রদেশের বাসিন্দা। এমন পরিস্থিতিতে সোমবার প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সভাপতিত্বে বৈঠকে বসে স্টান্ডিং কমিটি। রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থ সিনহুয়ায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘এই প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় দেখা যাওয়া অবহেলা ও ঘাটতি মেটাতে আমাদের অবশ্যই জাতীয় জরুরি ব্যবস্থাপনা সিস্টেমের উন্নতি ঘটাতে হবে এবং জরুরি ও বিপজ্জনক কাজ তদারকিতে আমাদের সামর্থ্য বাড়াতে হবে’। এছাড়া ওই বৈঠকে অবৈধ বণ্যপ্রাণীর ব্যবসা কঠোরভাবে নিষিদ্ধ এবং বাজারে তদারকি বাড়ানোরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ধারণা করা হচ্ছে হুবেই প্রদেশের উহান শহরের একটি বণ্যপ্রাণীর বাজার থেকে ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস। চীনের গবেষকদের ধারণা বাদুড় থেকে ছড়িয়েছে এই ভাইরাস। স্টান্ডিং কমিটির বৈঠকে উহান শহরকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে সেখানে অতিরিক্ত চিকিৎসা কর্মী পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়া ভাইরাস ঠেকাতে ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হওয়া কর্মকর্তাদের শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে বলেও সিদ্ধান্ত হয়েছে ওই বৈঠকে।