• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ৩১ জুলাই ২০২০, ৯ জিলহজ ১৪৪১, ৩১ জুলাই ২০২০

সিরিয়ায় তেল না গেলে ছেড়ে দেয়া হবে ইরানি ট্যাংকার : যুক্তরাজ্য

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯

image

জেরেমি হান্ট ও জাভেদ জারিফ

শর্তসাপেক্ষে জিব্রাল্টার প্রণালীতে আটক ইরানের তেল ট্যাংকার ছেড়ে দিতে সম্মত হয়েছে যুক্তরাজ্য। ট্যাংকারটি সিরিয়ায় যাবে না- ইরানকে এমন নিশ্চয়তা দিতে হবে বলে দাবি ব্রিটেনের। ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট শনিবার এক ফোনালাপে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফকে একথা জানান।

এ প্রসঙ্গে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী হান্ট বলেন, ‘আমরা তেল কোথা থেকে আসছে তা নিয়ে নয় বরং তেল কোথায় যাচ্ছে তা নিয়ে সবসময় চিন্তিত ছিলাম। এই তেল সিরিয়ায় যাবে না এমন গ্যারান্টি পেলেই যুক্তরাজ্য ট্যাংকার ছেড়ে দেবে।’ ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞায় থাকা সিরিয়ার একটি শোধনাগারের জন্য ইরানি ট্যাংকার গ্রেস ১-এ করে অপরিশোধিত তেল নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এমন সন্দেহে গত ৪ জুলাই জিব্রাল্টার উপকূল থেকে ব্রিটিশ রাজকীয় মেরিনের সহায়তায় জব্দ হয় ট্যাংকারটি। ইরানি এ ট্যাংকার জব্দের ঘটনায় তেহরান কড়া প্রতিক্রিয়া জানায়। এ ঘটনাকে ‘দস্যুবৃত্তি’ আখ্যা দিয়ে শীঘ্রই গ্রেস ১-কে ছেড়ে না দিলে পাল্টা ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারিও দেয় তারা। ইরানি কয়েকটি নৌকা ব্রিটিশ একটি তেল ট্যাংকারকে বাধা দেয়ার চেষ্টা করেছে বলে গত ১১ জুলাই অভিযোগ করে যুক্তরাজ্য। জিব্রাল্টার পুলিশ তেলবাহী ওই সুপার ট্যাংকারটির ক্যাপ্টেন ও প্রধান কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তারও করে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার দিনের প্রথমভাগে তারা ট্যাংকারটির আরও দুইজনকে আটকের কথা জানালেও কয়েক ঘণ্টা পর ৪ জনকেই মুক্তি দেয়।

এর পরদিন (শনিবার) এক টুইটার বার্তায় ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোনে ফলপ্রসূ আলোচনা হওয়ার কথা জানান। তিনি বলেন, জারিফ তাকে জানিয়েছেন ইরান সমস্যাটির সমাধান চায় এবং উত্তেজনা বাড়াতে আগ্রহী নয়। যদিও জারিফ এও বলেছেন যে, ইরান যে কোন পরিস্থিতিতেই তেল রপ্তানি চালিয়ে যাবে। হান্টের সঙ্গে ফোনালাপের পর এক বিবৃতিতে জারিফ বলেছেন, পূর্ব ভূমধ্যসাগরে একটি বৈধ গন্তব্যেই যাচ্ছিল তেল ট্যাংকারটি। যুক্তরাজ্যের উচিত দ্রুত সেটি ছেড়ে দেয়া।