• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

সাড়ে ২৩ বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র চুক্তি করতে আমিরাতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

| ঢাকা , রোববার, ২২ নভেম্বর ২০২০

image

আল বাতিন বিমানবন্দরে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও -এপি

সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র চুক্তির বিষয়ে আলোচনা করতে দেশটিতে গেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। আবুধাবির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের সঙ্গে পম্পেও সাক্ষাৎ কররেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, আমিরাত-ইসরায়েল চুক্তি নিয়ে ইউএইর কার্যত নেতা বিন জায়েদ সঙ্গে বৈঠক করেন পম্পেও। নিরাপত্তা সহযোগিতা, অঞ্চলটিতে ইরানের ‘ক্ষতিকর’ কর্তৃত্বের পাল্টা পদক্ষেপসহ দ্বিপক্ষীয় উদ্বেগজনক নানা বিষয় নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়। আল-জাজিরা।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সহযোগী পম্পেও দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের পরাজয় মানতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। সম্প্রতি ফ্রান্স, তুরস্ক, জর্জিয়া ও ইসরায়েল সফর করেন তিনি। পম্পেও এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আগের যে কোন সময়ের তুলনায় ট্রাম্প প্রশাসনের অধীনে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউএইর সম্পর্ক আরও গভীর ও বিস্তৃত হয়েছে।’

এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান, আকাশযানসহ ২৩.৩ বিলিয়ন ডলার মূল্যের অস্ত্র আমিরাতের কাছে বিক্রি করার পরিকল্পনা ট্রাম্প প্রশাসনের। কিন্তু ট্রাম্প প্রশাসনের এই চুক্তিতে ক্ষুব্ধ ডেমোক্র্যাটিক ও রিপাবলিকান পার্টির আইনপ্রণেতারা। তারা এ চুক্তি বন্ধের চেষ্টা করছেন।

নির্বাচনের আগে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সম্মত হয় আমিরাত। এর পরপরই দেশটির কাছে অস্ত্র বিক্রির পরিকল্পনা করেন ট্রাম্প।

ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সিনেটর ক্রিস মারফি ও বব মেনেনদেজ এবং রিপাবলিকান পার্টির সিনেটর র‌্যান্ড পল আমিরাত সরকারের কাছে অস্ত্র বিক্রির সমালোচনা করেছেন। তাদের ভাষ্য, আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে অস্ত্রগুলো ব্যবহার করবে আমিরাত।