• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭ ২৯ শাবান ১৪৪২

সহিংসতা নিয়ে প্যালেস্টাইন যুক্তরাষ্ট্র পাল্টাপাল্টি দোষারোপ

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , রোববার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প প্রস্তাবিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা প্রকাশের পর থেকেই ইসরায়েল-প্যালেস্টাইনের মধ্যে সহিংসতা বাড়তে শুরু করেছে। এর জেরে প্যালেস্টাইন ও মার্কিন নেতারা একে অপরকে দোষারোপ করছেন।

ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি (শতাব্দীর সেরা চুক্তি) নামের কথিত এ পরিকল্পনা নিয়ে প্যালেস্টাইনিদের ক্ষোভে উত্তপ্ত পশ্চিম তীর। এর জেরে পশ্চিম তীরে ইসরায়েলের সঙ্গে সংঘর্ষে ২ প্যালেস্টাইনি নিহত হয়েছে। এদিকে জেরুজালেমে এ দুই পক্ষের মধ্যে হামলায় ১৬ ইসরায়েলি আহতের ঘটনায় ওই অঞ্চলে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার পশ্চিম তীরে নিহতদের শেষকৃত্যে জড়ো হন প্যালেস্টাইনিরা। এদিকে, জুমার নামাজের আগে জেরুজালেমের নিরাপত্তায় কড়াকড়ি আরোপ করেছে ইসরায়েল।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত সপ্তাহে হোয়াইট হাউজে সফররত ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে পাশে নিয়ে তার প্রস্তাবিত শান্তি পরিকল্পনা প্রকাশ করেন। এরপর পশ্চিম তীর ও জেরুজালেমজুড়ে ছড়িয়ে পড়া উত্তেজনার জন্য ওয়াশিংটনই দায়ী বলে অভিযোগ করেছেন প্যালেস্টাইনি শান্তি আলোচক সায়েব ইরাকাত। তিনি বলেন, ‘যারা জমি অধিগ্রহণের পরিকল্পনা প্রবর্তন করে এবং দখলদারিত্ব ও বসতি স্থাপনকে বৈধতা দেয়, তারা প্রকৃতপক্ষেই সহিংসতা ও পাল্টা সহিংসতার জোরালো পরিবেশ সৃষ্টির জন্য দায়ী।’

এ সময় প্যালেস্টাইনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস সত্যিকারের একটি শান্তি পরিকল্পনা নিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যাবেন বলে জানান ইরাকাত। এ অভিযোগের জবাবে সহিংসতার জন্য প্যালেস্টাইনকেই পাল্টা দোষারোপ করেছেন ট্রাম্প প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার। যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনার মূল কারিগর তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক প্রচেষ্টা থেকে বরাবরই প্যালেস্টাইনিদের মুখ ফিরিয়ে রাখার অভিযোগ করে এসেছেন কুশনার। এরই ধারবাহিকতায় বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে রাষ্ট্রদূতদের সামনে এক ব্রিফিংয়ের পর প্যালেস্টাইনের প্রেসিডেন্টকে দোষারোপ করে কুশনার বলেন, ‘আমি মনে করি এ দায় তার (প্যালেস্টাইনি প্রেসিডেন্ট আব্বাস)। তিনি (শান্তি পরিকল্পনার) জবাবে ক্ষোভ দিবস ডেকেছেন এবং পরিকল্পনাটি দেখার আগেই এসব মন্তব্য করেছেন।’

প্রসঙ্গত, ট্রাম্পের শান্তি পরিকল্পনাটি ইসরায়েলী স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বলে অভিযোগ উঠেছে।এ পরিকল্পনায় অধিকৃত অঞ্চলের ইহুদি বসতি বাদ দিয়ে এবং প্রায় পুরোপুরি ইসরায়েলের নিয়ন্ত্রণের অধীনে একটি বেসামরিক প্যালেস্টাইন রাষ্ট্র গড়ার কথা বলা হয়েছে। প্যালেস্টাইনিরাসহ আরব লিগ এবং ওআইসি ইতোমধ্যেই পরিকল্পনাটি প্রত্যাখ্যান করেছে। একই সঙ্গে ইসরায়েলের প্রতি পক্ষপাতদুষ্টতার অভিযোগ এনে ট্রাম্প প্রশাসনকেও বয়কট করেছে প্যালেস্টাইনিরা। ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনাটি প্যালেস্টাইনিদের দাবি ওঅধিকার মেটাতে সহায়ক নয় বলেই অভিযোগ তাদের।