• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ মহররম ১৪৪২, ০৯ আশ্বিন ১৪২৭

শাহিনবাগে গুলি চালানো ব্যক্তি আম আদমি পার্টির সদস্য দিল্লি পুলিশ

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

শাহিনবাগে গুলি চালানো ব্যাক্তিকে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ -এনডিটিভি

ভারতের রাজধানীর শাহিনবাগে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনবিরোধী (সিএএ) বিক্ষোভে গত সপ্তাহে গুলি চালানো ব্যক্তি দিল্লির ক্ষমতাসীন আম আদমি পার্টির (এএপি) সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ। দিল্লির ক্রাইম ব্রাঞ্চের কর্মকর্তারা গত মঙ্গলবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়ে বলেন, অভিযুক্ত কপিল গুজ্জার নিজেকে এএপি সদস্য বলে স্বীকার করে নিয়েছে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি ‘জয় শ্রীরাম’ বলে শাহিনবাগের বিক্ষোভে গুলি চালানো হয়। দিল্লির বিধানসভা নির্বাচনে ভোট গ্রহণের তিন দিন আগে পুলিশ এমন ঘোষণা দিল। এ নির্বাচনের অন্যতম বড় ইস্যু হয়ে উঠেছে শাহিনবাগের বিক্ষোভ। বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে রাজধানী দিল্লির শাহিনবাগে দীর্ঘদিন ধরেই বিক্ষোভ চলছে। মূলত নারীদের এই অবস্থান কর্মসূচি নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই কড়া মন্তব্য করছেন দেশটির ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতারা। কেন সেখানে দিনের পর দিন রাস্তায় বসে বিক্ষোভ চলবে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তারা। তাদের কেউ কেউ দিল্লির বিধানসভা ভোটে বিজেপি জিতলেই আন্দোলনকারীদের সেখান থেকে হটিয়ে দেয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) স্থানীয় সময় বিকালে শাহিনবাগের বিক্ষোভে গুলিবর্ষণের সময় বন্দুকধারীকে বলতে শোনা যায়, ‘আমাদের দেশে শুধু হিন্দুরাই থাকবে।’ এর আগে দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিক্ষোভেও পুলিশের উপস্থিতিতে গুলিবর্ষণ করে এক উগ্র হিন্দু জাতীয়তাবাদী কিশোর। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার রাতেও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে বিক্ষোভরতদের ওপর গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে।

এমন পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার দিল্লির ক্রাইম ব্রাঞ্চের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা রাজেশ রাও শাহিনবাগে গুলি ছোড়া কপিল গুজ্জারকে আম আদমি পার্টির সদস্য বলে দাবি করেন। এ সময় সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে এক বছর আগে সে আর তার বাবা এএপিতে যোগ দেয়। আমরা কপিলের মুঠোফোনে বেশ কিছু ছবি পেয়েছি যাতে আমাদের প্রকাশিত তথ্যই প্রমাণিত হয়।’ এসব ছবিতে কপিলকে এএপির জ্যেষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে দেখা গেছে।