• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, ২৩ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

মধ্যপ্রাচ্য সম্মেলন মার্কিন আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান প্যালেস্টাইনের

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

image

হুয়ান গুইদো

যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগে পোল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য তিন দিনের মধ্যপ্রাচ্য সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হলেও প্যালেসস্টাইন তা প্রত্যাখ্যান করেছে। প্যালেস্টাইনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের আমন্ত্রণে এ সম্মেলনে তারা উপস্থিত হবেন না। পোল্যান্ডের রাজধানী ওয়ারসোতে আজ এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সম্মেলনে প্যালেস্টাইন ও ইসরায়েলের মধ্যকার সংঘাত নিরসনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বহুল আলোচিত শান্তি পরিকল্পনা ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ নিয়ে আলোচনা করবেন হোয়াইট হাউজের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার। এ সম্মেলনে উপস্থিত হতে প্যালেস্টাইনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। শুক্রবার প্যালেস্টাইনকে আমন্ত্রণ জানানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মার্কিন কর্মকর্তারা।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ১২ থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য এ সম্মেলনে ৪০টিরও বেশি দেশ অংশগ্রহণ করবে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের এ আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করার কথা জানিয়েছেন শান্তি আলোচনায় প্যালেস্টাইনের শীর্ষ মধ্যস্থতাকারী সায়েব এরেকাত। এক টুইটার বার্তায় তিনি জানিয়েছেন, আমাদের অবস্থান স্পষ্ট, আমরা এই সম্মেলনে অংশ নিচ্ছি না। আমরা এটাও জানাতে চাই যে, প্যালেসস্টাইনের পক্ষে কথা বলার জন্য আমরা কাউকে মনোনীত করিনি। জেরুজালেমকে ইসরায়েলি রাজধানীর স্বীকৃতি ও সেখানে দূতাবাস স্থানান্তরের কথা ইঙ্গিত করে আরেকটি টুইটে এরেকাত লিখেছেন, আন্তর্জাতিক আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সিদ্ধান্ত নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন শান্তি আলোচনায় মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নিজেদের ভূমিকা হারিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার পর থেকে ট্রাম্প প্রশাসনের মধ্যস্থতায় ইসরায়েলের সঙ্গে কোন শান্তি আলোচনায় অংশগ্রহণ করবে না বলে জানিয়েছে আসছে প্যালেস্টাইন। এ নিয়ে উভয় দেশের মধ্যে সম্পর্কে টানাপড়েন চলছে। ইতোমধ্যেই প্যালেস্টাইনকে দেয়া প্রায় সব ধরনের আর্থিক সহযোগিতা বাতিল করেছে যুক্তরাষ্ট্র। রাজনীতি বিশ্লেষকদের আশঙ্কা, ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা মেনে নিতে চাপ দেয়ার জন্যই এসব সহায়তা বাতিল করা হচ্ছে।