• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭ ২৯ শাবান ১৪৪২

মালয়েশিয়ায় রাজনৈতিক সংকট

প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন আনোয়ার ইব্রাহিম!

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

আনোয়ার ইব্রাহিম

মালয়েশিয়ায় হঠাৎ সৃষ্ট রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব দিতে আনোয়ার ইব্রাহিমকে সমর্থন দিয়েছেন দেশটির আইনপ্রণেতারা। গত মঙ্গলবার ক্ষমতাসীন জোট পাকাতান হারাপানের সব আইনপ্রণেতা এ সমর্থন জানিয়ে অপর রাজনৈতিক দল পিকেআরের প্রেসিডেন্ট আনোয়ারকে সমর্থন ঘোষণা দেন। এর আগের দিন (সোমবার) দুপুরে আকস্মিকভাবে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন মাহাথির মোহাম্মদ। স্ট্রেইট টাইমস।

আধুনিক মালয়েশিয়ার রূপকার মাহাথির মোহাম্মদ গত সোমবার প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে আকস্মিকভাবেই ইস্তফা দিয়েছেন। একইসঙ্গে দেশটির ক্ষমতাসীন সরকার জোট পাকাতান হারাপান থেকেও পদত্যাগ করেছে তার দল পার্টি প্রিবুমি বেরসাতু মালয়েশিয়া। নতুন জোট সরকার গড়ার আলোচনার মধ্যেই তিনি তার পদত্যাগপত্র মালয়েশিয়ার রাজার বরাবর পাঠিয়েছেন। গত মঙ্গলবার প্রকাশিত দেশটির সংবাদ মাধ্যমের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়ে বলা হয়েছে, মাহাথিরের পদত্যাগের জেরেই দেশটিতে নতুন করে এ রাজনৈতিক সংকট দেখা দিয়েছে। মালয়েশিয়ার রাজা ইয়াং দি-পারতুয়ান আগংয়ের কাছে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আনোয়ার ইব্রাহিমর নাম উপস্থাপন করেন পিকেআরের আইনপ্রণেতারা। সূত্র জানিয়েছে, আমানাহ জোটের সংসদ সদস্যরাও এতে সমর্থন দিয়েছেন।

আশা করা হচ্ছে, বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাজার সামনে ডিএপি দলের আইনপ্রণেতারাও আনোয়ারকে সমর্থন দেবেন। এর আগে দেশটির রাজার সঙ্গে সাক্ষাতের পর আইনপ্রণেতা ওয়াংসা মাঝু তান ইই কিউ বলেন, ‘আনোয়ার ইব্রাহিমকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সমর্থন করতে আমি বিধিবদ্ধ ঘোষণায় স্বাক্ষর করেছি।’ ধারণা করা হচ্ছে, এ ব্যাপারে খুব শীঘ্রই দলীয় আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিবেন পিকেআরের যোগাযোগ পরিচালক ফাহমি ফাদজিল। আমানাহ জোটের যোগাযোগ পরিচালক খালিদ সামাদ আগেই টুইট বার্তায় লিখেছেন, ‘আনোয়ারের যথেষ্ট সমর্থন আছে- তাকে এটা প্রমাণের সুযোগ দেওয়া উচিৎ।’ এখন বারসাতু দল ও পিকেআর’র ১১ আইনপ্রণেতা পাকাতান জোট থেকে বেরিয়ে গেছে জোটে মোট ৯২টি সিট থাকবে। দেশটির আইন অনুসারে ন্যূনতম সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনের জন্য প্রয়োজন ১১২ জন সংসদ সদস্য। সেই অর্থে আর ১০টি সমর্থন আদায় করতে পারলেই আনোয়ার প্রধানমন্ত্রী হবেন।

দুর্নীতির অভিযোগের মধ্যে ২০১৮ সালে ক্ষমতাচ্যুত হয় ইউএমএনও। বর্তমানে ৯৪ বছর বয়সী মাহাথির ও ৭২ বছর বয়সী আনোয়ার কয়েক দশক ধরে মালয়েশিয়ার রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করে আসছেন। সূত্র জানায়, ইউএমএনও এবং ইসলামিক পার্টি পিএএসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মাহাথিরের দল ও আনোয়ারের দলের একটি অংশ বৈঠক করে। ধারণা করা হয়, নতুন জোট গঠন ও পাঁচ বছর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনে মাহাথিরকে সমর্থনের জন্য এ বৈঠক হয়। এসব গুজবের অবসান ঘটিয়েই পদত্যাগ প্রধানমন্ত্রী মাহাথির। এ দুই প্রভাবশালী নেতার জোট ২০১৮ সালের নির্বাচনে জয়ী সরকার গঠন করে। মাহাথির দুই বছর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করার পর ২০২০ সালে আনোয়ারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন এমন প্রতিশ্রুতির ভিত্তিতে তাদের জোট গঠিত হয়।

এর আগে ১৯৮১ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত ২২ বছর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মাহাথির। সে সময় উপ-প্রধানমন্ত্রী ছিলেন আনোয়ার। ১৯৯৮ সালে অর্থনৈতিক মন্দা মোকাবিলা করা নিয়ে দ্বন্দ্বে তাকে বহিষ্কার করেন মাহাথির। সমকামীতার অভিযোগে ১৯৯৯ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত কারাভোগ করতে হয় তাকে। পরে ২০১৮ সালের নির্বাচনের আগে মাহাথির আবারও তার সঙ্গে জোট গঠন করেন।