• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৮ি জিলহজ ১৪৪১, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

পাকিস্তানে পার্লামেন্টের স্পিকার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , রোববার, ০৩ মে ২০২০

পাকিস্তানের জাতীয় সংসদের (ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি) স্পিকার আসাদ কায়সার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার স্পিকারের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হলে ফলাফলে কোভিড-১৯ শনাক্ত (পজিটিভ) হয়। এ খবর আসাদ নিজেই এক টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন। রয়টার্স।

দক্ষিণ এশিয়ার এ দেশটিতে গত শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ১৬ হাজার ৮০০ জনেরও বেশি করোনাভাইরাস জনিত রোগ কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে। মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩শ’ ৮৫ জনে। সংবাদ মাধ্যমটি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়ে বলেছে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত রাজনীতিবিদ আসাদ কায়সার। কয়েকদিন আগেও তিনি ইমরানসহ বেশ কয়েকজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তবে স্পিকারের করোনা শনাক্ত হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে গত এপ্রিলে পাকিস্তানের সবচেয়ে বড় দাতব্য সংস্থার প্রধান ফয়সাল ইধির সঙ্গে বৈঠকের পর ইমরানের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ইমরান ও ফয়সালের ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এর কয়েকদিন পরেই ইধি ফাউন্ডেশনের কর্তধার ফয়সালের কোভিড-১৯ ধরা পড়ে।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ইমরান সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনায় পাকিস্তানের বিরোধীদলীয় সাংসদরা বেশ কিছুদিন ধরেই পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির অধিবেশন ডাকার আহ্বান জানিয়ে আসছিলেন। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই বৃহস্পতিবার ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির স্পিকার আসাদ কায়সার এক টুইটার বার্তায় তার আক্রান্ত হওয়ার খবর জানিয়ে বলেন, ‘আমি বাসায় কোয়ারেন্টিনে আছি।’ আসাদ গত সোমবার প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন। তাছাড়া, ওইদিন রাজনীতিবিদ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সম্মানে একটি ইফতার পার্টিরও আয়োজন করেন তিনি। এর পরের কয়েকদিনে আসাদের সঙ্গে সরকারের উচ্চপদস্থ আরও কয়েকজন কর্মকর্তার বৈঠক হয়েছে। পাকিস্তানের সরকার জানিয়েছে, আক্রান্তের সংখ্যা তাদের ধারণার তুলনায় কম দেখা যাচ্ছে। অর্থনৈতিক ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় আরও কিছু বিধিনিষেধ তুলে দেয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে বলে দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। সম্প্রতি কয়েক সপ্তাহে পাকিস্তান করোনাভাইরাস শনাক্তের পরীক্ষা বাড়িয়েছে। প্রায় ২১ কোটি জনসংখ্যা অধ্যুষিত দেশটি এখন প্রতিদিন ৮ হাজারের কাছাকাছি পরীক্ষা করছে।