• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০, ১৭ জিলহজ ১৪৪১, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭

পাকিস্তানে পাঁচ তারকা হোটেলে সন্ত্রাসী হামলা : হতাহত সাত

ইসলামাবাদের অর্থনীতিকে ক্ষতিগ্রস্ত করতেই এ হামলা চালানো হয়েছে -প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক

| ঢাকা , সোমবার, ১৩ মে ২০১৯

পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের একটি পাঁচ তারকা হোটেলে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে তিন নিরাপত্তাকর্মী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও চারজন। গত শনিবার প্রদেশটির গওয়াদরের শহরের পার্ল কন্টিনেন্টাল (পিসি) হোটেলে এ ঘটনা ঘটে। এ হামলার দায় স্বীকার করেছে দেশটির বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী বেলুচিস্তান লিবারেশন আর্মি। জঙ্গিগোষ্ঠীটির দাবি, চীনা বিনিয়োগে স্থানীয়দের খুব একটা লাভ হবে না। তাই বিদেশি বিনিয়োগকারীদের লক্ষ্য করে এ হামলা চালিয়েছে তারা। গওয়াদরে চীনের মাল্টি বিলিয়ন ডলারের প্রকল্পের কাজ চলছে।

হামলার পর বিলাসবহুল হোটেলটিতে অবস্থানরতদের নিরাপদে বের করে আনা হয়। স্থানীয়রা জানান, হোটেলে সন্ত্রাসীরা প্রবেশের সময় বেশ কয়েকটি গুলির শব্দ শোনা গেছে। কোটি ডলারের চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোর প্রকল্পে গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান রয়েছে হোটেলটির। গুয়াদার থানার কর্মকর্তা আসলাম বাংগুলজাই জানান, পার্ল কন্টিনেন্টাল হোটেলে বিকাল ৪টা ৫০ মিনিটে ৩ থেকে ৪ জন বন্দুকধারী হামলা চালায়। পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহসিন হাসান বাট জানান, বন্দুকধারীরা গুলি করতে করতে হোটেলে প্রবেশ করেছে। হামলার সময় সেখানে কোনও বিদেশি নাগরিক ছিলেন না। যারা ছিলেন তারা সবাই হোটেলের কর্মী। ওই ঘটনায় সেখানে অবস্থানরত ৯৫ শতাংশ মানুষকে বের করে আনতে সক্ষম হয় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। বেলুচিস্তান লিবারেশন আর্মি (বিএলএ দাবি করেছে, তারা চীনা ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। বিএলএর’র মুখপাত্র জুনায়েদ বালুচ জানান, চীনা ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের লক্ষ্য করেই হোটেলেটিতে হামলা চালানো হয়েছে। তাদের দাবি, চীনা বিনিয়োগে স্থানীয়দের খুব বেশি উপকার হবে না। তাই তারা এই বিনিয়োগের বিরোধিতা করছে। এর আগে ২৮ নভেম্বর করাচিতে চীনা কনস্যুলেট ভবনেও হামলা চালায় বিএলএ। তবে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা তা নস্যাৎ করে দেয়। পাকিস্তানের সবচেয়ে দরিদ্র ও অনুন্নত এ বেলুচিস্তানে দীর্ঘদিন ধরে বিদ্রোহ চলছে। পাকিস্তান তালেবান, দ্য বেলুচিস্তান লিবারেশন আর্মি, সুন্নি মুসলিম জঙ্গিগোষ্ঠী লস্কর-ই-জাঙ্গভিসহ বেশ কয়েকটি বিদ্রোহী গোষ্ঠী এই এলাকায় তৎপর রয়েছে।