• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ১১ ফাল্গুন ১৪২৪, ৬ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

চীন সীমান্তে দুই হাজার সেনা মোতায়েন করবে যুক্তরাষ্ট্র

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

image

পূর্ব এশিয়ায় আরও অনেক সেনা মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পেন্টাগন। চীনের উদীয়মান অর্থনীতি ও সামরিক শক্তির বিরুদ্ধে একটি ফ্রন্ট খোলার লক্ষ্যে ওয়াশিংটন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পেন্টাগনের পরিকল্পনায় বলা হয়েছে, ট্রাম্প প্রশাসন শীঘ্রই সে দেশের মেরিন এক্সপেডিশনারি ইউনিটকে (এমইইউ) পূর্ব এশিয়ায় মোতায়েন করার নির্দেশ দেবে। এর ফলে ২ হাজার ২০০ মেরিন সেনাকে তাদের নিজস্ব বিমান, ট্যাংক ও অন্যান্য ভারি অস্ত্রশস্ত্রসহ চীন সীমান্তে মোতায়েন করা হবে। সাত মাস পরপর এসব সেনা পরিবর্তন করা হবে। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

পরিকল্পনায় আরও বলা হয়েছে, মোতায়েন করা সেনাদের কিছু অংশকে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ ও আফগানিস্তানে অবস্থিত মার্কিন ঘাঁটিগুলো থেকে সংগ্রহ করা হবে। এছাড়া, পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে এর আগে থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় এক লাখ সেনা মোতায়েন রয়েছে। এর মধ্যে জাপানে রয়েছে ৫০ হাজার, দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রায় ৩০ হাজার এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রশান্ত মহাসাগরীয় গুয়াম দ্বীপের ঘাঁটিতে রয়েছে আরও ৭ হাজার মার্কিন সেনা। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রাম্প প্রশাসন ইতোমধ্যে পূর্ব এশিয়ায় চীন ও রাশিয়ার ক্রমবর্ধমান প্রভাব ঠেকানোর যে কৌশল গ্রহণ করেছে তারই অংশ হিসেবে এসব মেরিন সেনা মোতায়েন করা হবে। চীনকে প্রতিহত করতে মার্কিন সরকার এর আগেই ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যিক ও সামরিক সহযোগিতা শক্তিশালী করেছে। যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের সঙ্গে ভারত ইতোমধ্যে নৌ মহড়া শুরু করেছে যাতে শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়াও যোগ দেবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। ভারতের সঙ্গে স্থলসীমান্ত নিয়ে চীনের মতবিরোধ রয়েছে। এছাড়া, দক্ষিণ চীন সাগরের একাধিক দ্বীপপুঞ্জের মালিকানা নিয়েও বেইজিংয়ের সঙ্গে পূর্ব এশিয়ার কিছু দেশের মতপার্থক্য রয়েছে। মার্কিন সরকার পূর্ব এশিয়ায় নিজের প্রভাব বাড়ানোর জন্য এসব মতবিরোধকে মোক্ষম সুযোগ হিসেবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছে।