• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৯ কার্তিক ১৪২৭, ৭ রবিউল ‍আউয়াল ১৪৪২

কাশ্মীর ইস্যুতে চীনের মন্তব্য

ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ভারতের

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , সোমবার, ০৭ অক্টোবর ২০১৯

image

কাশ্মীর ইস্যুতে চীনের মন্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে দিল্লি। এ প্রসঙ্গে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবিশ কুমার বলেছেন, জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ। দিল্লি সেখানে যে ব্যবস্থা নিয়েছে তা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। ভারত ও পাকিস্তান দুই দেশ আলোচনার ভিত্তিতে কাশ্মীর সংকটের সমাধান করবে। এ নিয়ে চীন যেন অনধিকার চর্চা না করে। কাশ্মীর ইস্যুতে বেইজিং পাকিস্তানের পাশে রয়েছে- সম্প্রতি ইসলামাবাদে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত এমন ঘোষণা দেন । তার ওই মন্তব্যের জবাবেই এমন প্রতিক্রিয়া জানালেন ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র।

আগামী ১১ অক্টোবর ভারতে সফরের কথা রয়েছে চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উপস্থিতিতে একটি সম্মেলনে যোগ দেয়ার কথা রয়েছে তার। তার আগে কাশ্মীর নিয়ে চীনের রাষ্ট্রদূতের মন্তব্য ও নয়াদিল্লির প্রতিক্রিয়া তাৎপর্যপূর্ণ বলেই প্রতীয়মান হচ্ছে। গত শুক্রবার ইসলামাবাদে কাশ্মীর ইস্যুতে কথা বলেন চীনা রাষ্ট্রদূত ইয়াও জিং। তিনি বলেন, ‘কাশ্মীরিদের মৌলিক অধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠা ও ন্যায়বিচারের দাবিতে আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি। কাশ্মীর সমস্যার যৌক্তিক সমাধান হওয়া উচিত। এই ইস্যুতে এবং আঞ্চলিক শান্তির লক্ষ্যে পাকিস্তানের পাশে রয়েছে চীন।’ গত সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘ সাধারণ সভায় কাশ্মীর ইস্যু উত্থাপন করে বেইজিং। ভারত সরকার কর্তৃক অধিকৃত কাশ্মীরের সাংবিধানিক মর্যাদা বাতিলের পর চীনের প্রস্তাব অনুযায়ী, নিরাপত্তা পরিষদে এ নিয়ে আলোচনা হয়। চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং জি জাতিসংঘে দেয়া ভাষণে বলেন, ‘কাশ্মীর নিয়ে অতীত থেকেই সমস্যা রয়েছে। জাতিসংঘের সনদ মেনেই এর সমাধান হওয়া উচিত। একতরফাভাবে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত নয়। ভারত ও পাকিস্তান; উভয়ের প্রতিবেশী হিসেবে চীন কাশ্মীর সমস্যার যৌক্তিক সমাধান ও আঞ্চলিক শান্তি দেখতে আগ্রহী। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

চীন সফরে যাচ্ছেন ইমরান খান

এদিকে কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের সঙ্গে পাকিস্তানের দূরত্ব বাড়ার মধ্যেই চীন সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। দুই দিনের সফরে আগামী সপ্তাহে চীন যাবেন ইমরান। পাকিস্তানী গণমাধ্যম জানিয়েছে, চলতি মাসের ৭ ও ৮ তারিখে চীন সফরে যাবেন ইমরান। মূলত পাকিস্তানে চীনের অর্থনৈতিক করিডোরের বন্ধ কাজ শুরু করার জন্য বেইজিং সফর করবেন ইমরান। অর্থনৈতিক করিডরের কাজে গতি আনতে সম্প্রতি সে দেশের প্রধানমন্ত্রীর দফতরে একটি বৈঠক করেন ইমরান খান। ওই বৈঠকে ইমরান খান জোর দিয়ে বলেন, চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর প্রকল্পের কাজ সময় মতো শেষ হওয়ার ব্যাপারে তার সরকার বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। ওই বৈঠকে ইমরান খান জানান, চীন এবং পাকিস্তানের মধ্যেকার বন্ধুত্ব আরও জোরদার করার চেষ্টা করা হবে। সম্প্রতি জাতিসংঘে ভারতের ওপর ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

এবার সৌদি সফরে যাচ্ছেন মোদি

অপরদিকে পাকিস্তানের সঙ্গে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যেই এবার রিয়াদ সফরে যাচ্ছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ সফরে সৌদি যুবরাজ (ক্রাউন প্রিন্স) মোহাম্মদ বিন সালমান ছাড়াও দেশটির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি। সম্প্রতি সৌদি আরব সফর করেছেন দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালো।

সৌদি সফরের সময় রাজধানী রিয়াদে বিনিয়োগ সম্মেলনেও উপস্থিত থাকবেন মোদি। ভারতের কয়েকটি গণমাধ্যম এই খবর দিয়েছে। তবে এখনও ভারত সরকারের পক্ষে এই সফরের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়নি। সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, মোদির সফরের আগে প্রাক আলোচনা করতেই সৌদিতে গিয়েছিলেন অজিত ডোভালো। সৌদিতে হবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদির দ্বিতীয় সফর। সম্প্রতি কাশ্মীর নিয়ে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে আড়াই ঘণ্টার বৈঠক করেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালো। এরপর ভারত দাবি করেছে, কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের পক্ষে থাকার কথা জানিয়েছেন সৌদি যুবরাজ।