• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ২৩ জিলহজ ১৪৪১, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭

করোনায় মৃত্যুর হার দক্ষিণ কোরিয়ার চেয়ে কম ভারতে

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , সোমবার, ০৪ মে ২০২০

image

মুম্বাইয়ের রাস্তায় করোনা টেস্টিং (পরীক্ষা) বাস

নতুন নভেল করোনাভাইরাস জনিত রোগ কোভিড-১৯ বিশ্বজুড়ে মৃত্যুযজ্ঞ চাালাচ্ছে। ভাইরাসটিতে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারতজুড়েও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। তবে প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভারতে মৃত্যু হার ৩ দশমিক ৩ শতাংশ। দেশটির প্রতি লাখ জনসংখ্যায় এ হার ০ দশমিক ০০৯ জন। যা পূর্ব এশিয়ার দেশ দক্ষিণ কোরিয়াসহ কয়েকটি দেশের তুলনায় কম। চীন করোনার বিস্তার ঠেকাতে যে গণ-বিচ্ছিন্নতা পদ্ধতি প্রয়োগ করেছিল ভারতও সে পদক্ষেপই নিয়েছে। মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয় জনস হপকিন্সের পক্ষ থেকে দেয়া পরিসংখ্যানে এমন তথ্য উঠে এসেছে। জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি, এনডিটিভি।

গত শনিবার ভারতে ২ হাজার ৪১১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। যা একদিনে নতুন আক্রান্তের নয়া রেকর্ড। এ সংখ্যা নিয়ে দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৭ হাজার ৭৭৬ জনে। এর আগের দিন শুক্রবার ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে কোভিড-১৯ এ ৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে মৃতের সংখ্যা মোট দাঁড়াল ১ হাজার ২২৩ জনে। এদিকে করোনাভাইরাস জনিত রোগ কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়া প্রথম সারির দেশগুলোর মধ্যে একটি হলো দক্ষিণ কোরিয়া। তারা এ ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে অনেকটাই সফল হয়েছে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ১০ হাজার ৭৮০ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ২৫০ জনের। দেশটিতে আক্রান্ত মোট মানুষের সংখ্যায় মৃত্যুর হার ২ দশমিক ৩ শতাংশ। প্রতি লাখে মৃত্যুর এ হার দশমিক ৪৮ জন। যা চীনে ০ দশমিক ৩৩ জন এবং ভারতে ০ দশমিক ০৯ জন। মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয় জনস হপকিন্সের পক্ষ থেকে দেয়া পরিসংখ্যানে এমন তথ্য জানা গেছে।

চীনে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৩ হাজার ৯৫৯ এবং মৃত্যু হয়েছে ৪৬৩৭ জন। দেশটিতে আক্রান্তের তুলনায় মৃত্যুর হার ৫দশমিক ৫ শতাংশ। ভারতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭ হাজার ২৫৭ এবং মৃত্যু হয়েছে ১হাজার ২২৩ জনের।

ইউরোপের কয়েকটি দেশে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক। প্রতি লাখ জনসংখ্যায় মৃত্যুর হারে সবচেয়ে ওপরে বেলজিয়াম। দেশটিতে প্রতি লাখ জনসংখ্যা করোনায় মৃত্যুর হার ৬৭ দশমিক ৪৪ জন। আর এ হার স্পেনে ৫৩, ইতালিতে ৪৭, যুক্তরাজ্যে ৪২, ফ্রান্সে ৩৭ এবং যুক্তরাষ্ট্রে ২০ জন।

এ দেশগুলোতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় শতকরা মৃত্যুর হারও অনেক বেশি। এসব দেশে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে ১২-১৬ শতাংশ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বিশ^জুড়ে করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে শুধু যুক্তরাষ্ট্রে ৬ শতাংশ মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুর তথ্য বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, যদি করোনাভাইরাসের পরীক্ষা আরও বেশি করা হতো তাহলে এ ছবি ভিন্ন হতে পারত।

করোনায় সাবেক বিচারপতির মৃত্যু

এদিকে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ভারতের লোকপাল সদস্য ও সাবেক বিচারপতি একে ত্রিপাঠি। গত শনিবার দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউ অব মেডিকেল সায়েন্সে (এআইআইএমএস) ৬২ বছর বয়সী এ রাজনীতিককে ভর্তি করা হয়।

দেশটির সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়ে বলেছে, ভারতের দুর্নীতিবিরোধী লোকপালের চার জুডিসিয়াল সদস্যের একজন ছিলেন ত্রিপাঠি । ছত্তিশগড় রাজ্যের সাবেক প্রধান এ বিচারপতিকে এআইআইএমএসের ট্রমা সেন্টারের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছিল। পরিস্থিতি সঙ্কটজনক হওয়ায় তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়। কিন্তু শনিবার স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে তার মৃত্যু হয়। বিচারপতি ত্রিপাঠির কন্যা ও বাবুর্চিও কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হন। তবে পরে তারা রোগ সুস্থ হয়ে ওঠেন। এআইআইএমএসের ট্রমা কেয়ার সেন্টার সড়ক দুর্ঘটনায় আহতদেরই বেশি চিকিৎসা দিয়ে থাকে। সম্প্রতি একে কোভিড-১৯ হাসপাতালে রূপান্তর করা হয়েছে।

মুম্বাইয়ের রাস্তায় ‘করোনা টেস্টিং বাস’

অপরদিকে করোনার বিস্তার ঠেকাতে দেশটির মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকার পরীক্ষার সংখ্যা বাড়াতে এক অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে। এখন থেকে রাজ্যের রাজধানী মুম্বাইয়ের রাস্তায় চলবে করোনা টেস্টিং (পরীক্ষা) বাস! ওরলির ন্যাশনাল স্পোর্টস ক্লাব এলাকা থেকে যাত্রা শুরু করে ওই বাসটি।

গত শুক্রবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে করোনা টেস্টিং বাসটির উদ্বোধন করা হয়। বাসটিতে থাকছে করোনা সংক্রমণ পরীক্ষা ল্যাব। উচ্চমাত্রার সংক্রমক এ ভাইরাসটি পরীক্ষার জন্য অত্যাধুনিক সব ধরনের সরঞ্জাম। আরও থাকছে এক্সরে করার সুবিধা। বাসটিতে একটি ছোট চেম্বার করে সেখানে করোনা পরীক্ষা চলছে। এ প্রসঙ্গে রাজধানী শহর মুম্বাই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের এক কর্মকর্তা জানান, এ ধরনের উদ্যোগ ভারতে প্রথম। মুম্বাইয়ে মোবাইল করোনা টেস্টিং ল্যাব চালু হলো। দেশের অন্য সব শহরেও এই উদ্যোগ নেয়া হবে বলে তিনি আশাবাদী।

বাসটিতে পরীক্ষাগারে সোয়াব নমুনা নেয়া হচ্ছে। বস্তি এলাকাগুলোতে ঘুরছে ওই যানটি। ওইসব এলাকায় উপসর্গবিহীন করোনা আক্রান্ত বাহকদের উপস্থিতি বেশি থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।