• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭ ২৯ শাবান ১৪৪২

কঙ্গোয় জঙ্গি হামলায় ৬২ বেসামরিক নাগরিক নিহত

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , সোমবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০

আফ্রিকার মধ্যাঞ্চলীয় শহর ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোর পূর্বাঞ্চলে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের সিরিজ হামলায় অন্তত ৬২ বেসামরিক নগারিক নিহত হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে চালানো হামলায় হতাহতের এ সংখ্যা দাঁড়িয়েছে বলে শনিবার গণমাধ্যমকে জানায় দেশটির সরকার। রয়টার্স।

সংবাদ মাধ্যমটি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, কঙ্গোর বেনি অঞ্চলে প্রতিবেশী উগান্ডার অ্যালাইড ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস (এডিএফ) এর জঙ্গিদের তৎপরতা রয়েছে। দেশটির সেনাবাহিনী বেনিতে জঙ্গিবিরোধী অভিযান চালাচ্ছে। জানুয়ারির প্রথমদিকে পরিস্থিতি তুলনামূলক শান্ত থাকায় অভিযান সফল হয়েছে বলে দাবি করেছিল কঙ্গোর সরকার। কিন্তু ওই মাসের শেষ দিকে চালানো এসব হামলায় সরকারের দাবি ম্লান হয়েছে।

সরকার এডিএফের হামলায় ৬২ জন নিহত হওয়ার কথা বললেও মানবাধিকার গোষ্ঠী সিইপিএডিএইচও জঙ্গিগোষ্ঠীটির হামলায় নারী ও শিশুসহ অন্তত ৭৪ জন নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে। হামলায় এডিএফের যোদ্ধারা আগ্নেয়াস্ত্র ও ছুরি ব্যবহার করেছে বলে জানিয়েছেন তারা। মানবাধিকার গোষ্ঠীটি জানিয়েছে ৪৮ ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে প্রায় ১০টি গ্রামে হামলা চালিয়েছে এডিএফের যোদ্ধারা।

কঙ্গোর খনিসমৃদ্ধ পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্ত এলাকার গভীর বনাঞ্চলে এডিএফসহ ১২টিরও বেশি সশস্ত্র গোষ্ঠী সক্রিয় রয়েছে। এ অঞ্চলের অস্থিরতা পর্যবেক্ষণকারী গোষ্ঠী কিভু সিকিউরিটি ট্র্যাকার জানিয়েছে, ৩০ অক্টোবর কঙ্গোর সেনাবাহিনী বেনি অঞ্চলে অভিযান শুরু করার পর থেকে এডিএফের সর্বশেষ হামলাসহ বিভিন্ন হামলায় অন্তত ৩১২ জন বেসামরিক নিহত হয়েছে।

কঙ্গোর সেনাবাহিনী ও জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীর একের পর এক আক্রমণ সত্ত্বেও ১৯৯০ এর দশকে উগান্ডা থেকে কঙ্গোয় আসা এডিএফ নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষা করে চলেছে। সরকারি বাহিনী ও শান্তিরক্ষী বাহিনীর আক্রমণের শিকার হওয়ার পরই তারা বেসামরিকদের ওপর হামলা চালিয়ে ওইসব আক্রমণের প্রতিশোধ নিয়ে থাকে।