• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭ ১৮ রজব ১৪৪২

কঙ্গোতে জাতিসংঘের গাড়িবহরে হামলা : রাষ্ট্রদূতসহ নিহত ৩

| ঢাকা , বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১

image

কঙ্গোর গোমা শহরে ইতালীয় রাষ্ট্রদূতের গাড়িতে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়-রয়টার্স

ডেমোক্র্যাটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোতে জাতিসংঘের গাড়িবহরে হামলায় ইতালির রাষ্ট্রদূত লুকা আতানসিওসহ কমপক্ষে ৩ জন নিহত হয়েছেন। আফ্রিকা মহাদেশের মধ্যাঞ্চলীয় দেশটিতে স্থানীয় সময় সকাল সোয়া ১০টার দিকে নিরানগঙ্গো অঞ্চলের রাজধানী গোমার কাছে এ হামলা হয়। নিহতদের মধ্যে আরও আছেন রাষ্ট্রদূতের দেহরক্ষী ও জাতিসংঘ খাদ্য কর্মসূচির একজন গাড়িচালক। ইতালি সরকার এক বিবৃতিতে রাষ্ট্রদূত লুকা আত্তানাসিও (৪৩), ইতালীয় পুলিশ সদস্য ভিত্তোরিও ইয়াকোভাচি (৩০) এবং কঙ্গোলিজ গাড়িচালকের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করেছে।

কূটনৈতিক ও স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) একটি গাড়িবহর থেকে রাষ্ট্রদূত ও তার প্রহরার দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তা কর্মকর্তাকে অপহরণের চেষ্টা চালায় দুর্বৃত্তরা। এ সময় প্রাণ যায় ওই নিরাপত্তা কর্মকর্তা ও গাড়িচালকের।

গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় রাষ্ট্রদূতকে। পরে গোমায় অবস্থিত জাতিসংঘের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

কঙ্গোর রাজধানী কিনসাশায় ইতালির মিশনে ২০১৭ সাল থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন লুকা আতানসিও। ২০১৯ সালে দায়িত্ব নেন রাষ্ট্রদূত হিসেবে। তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে ইতালির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

কারা এ হামলা চালিয়েছে, তা এখনও জানা যায়নি। তবে যে পথ অতিক্রম করে যাচ্ছিল গাড়িবহরটি, সেখানে প্রায়ই স্থানীয় ডাকাত দল এবং সশস্ত্র বিদ্রোহীদের হামলার খবর পাওয়া যায়। এলাকাটি আঞ্চলিক রাজধানী গোমা থেকে প্রায় ২৫ কিলোমিটার উত্তরে।

বিশ্বে সংঘাত কবলিত বিভিন্ন দেশে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনের মধ্যে সবচেয়ে বড় এবং বিপজ্জনক হিসেবে বিবেচিত কঙ্গো প্রজাতন্ত্রে পরিচালিত মিশন।

কঙ্গোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারি এনথুম্বে এনজেজা বলেছেন, এ ভয়াবহ হত্যাকা-ের পেছনে কারা আছে তা বের করতে আমাদের দেশের সরকার সবকিছু করবে বলে আমি ইতালির সরকারকে প্রতিক্রুতি দিচ্ছি।

জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি ডব্লিউএফপি জানিয়েছে, রুতশুরু এলাকার একটি স্কুলের শিশুদের খাওয়ানোর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ওই পথ দিয়ে যাচ্ছিলেন প্রতিনিধিরা।

জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনের অংশ হিসেবে বর্তমানে কঙ্গোতে নিয়োজিত আছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৪টি এবং বিমানবাহিনীর ৩টি কনটিনজেন্ট।