• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ২৩ মে ২০২০, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৯ রমজান ১৪৪১

করোনাভাইরাস

এবার যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর নতুন রেকর্ড

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০২০

image

করোনাভাইরাসের ভয়াল থাবায় বিশ্বব্যাপী বেড়েই চলেছে মৃতের সংখ্যা। এবার এ ভাইরাসে ১ দিনে মোট ২৫২ জন মারা যাওয়ার মধ্য দিয়ে মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ছাড়াল বিশ্বের সবেচেয়ে ক্ষমতাধর দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও। দেশটিতে করোনায় গতকাল পর্যন্ত সর্বমোট ১ হাজার ৫০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এবং মার্কিন গবেষণা প্রতিষ্ঠান জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় এ তথ্য জানিয়েছে। চীন ও ইতালির পর এখন এ ভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা তৃতীয় সর্বোচ্চ। এদিকে পরিস্থিতি মোকাবিলায় ২ ট্রিলিয়ন ডলারের বিশাল এক অর্থ সহায়তা বিল পাস করেছে মার্কিন সিনেট। বিবিসি, রয়টার্স, দ্য গার্ডিয়ান।

গতকাল সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়ে বলেছে, গত জানুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর এখনও পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ৭০ হাজার মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একদিনেই দেশটিতে নতুন করে ১০ হাজার করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র নভেল করোনাভাইরাস মহামারী ছড়ানোর নতুন বিশ্বকেন্দ্র হতে পারে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) সতর্ক করেছে। তবে ইস্টারের আগেই যুক্তরাষ্ট্র করোনাভাইরাসমুক্ত হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। যদিও ভাইরাসটি ‘বুলেট ট্রেনের’ চেয়েও দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে বলে সতর্ক করেছেন নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো।

এদিকে সংবাদ মাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান গত বুধবার দেশটিতে একদিনে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এদিন ২২৩ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছেন মার্কিন কর্মকর্তারা। এ নিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৯৪৭ জনে পৌঁছেছে। এছাড়াও একইদিন (বুধবার) দেশটিতে নতুন করে ১১ হাজারেরও বেশি আক্রান্ত শনাক্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৮ হাজার ৫৭১ জনে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী শহর উহান থেকে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস। মারাত্মক ছোঁয়াচে এ ভাইরাসের শিকার হয়ে দেশটির সরকারি হিসেবে মারা গেছে ৩ হাজার ২৮১ জন। তবে চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে। সেখানে ৭ হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে জানিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আরও বেশি নমুনা পরীক্ষা ও বিশ্লেষণ করায় আক্রান্তের সংখ্যা নাটকীয়ভাবে বাড়ছে। দেশটির নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। সেখানে প্রায় ৩০ হাজার ৮শ’রও বেশি রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন।

হোয়াইট হাউসে করোনাভাইরাস টাস্কফোর্সের সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, যত কঠোরভাবে আমরা সামাজিক বিচ্ছিন্নতা (সোশ্যাল ডিসটান্সিং) মেনে চলব, তত বেশি প্রাণ রক্ষা করতে পারব।

অপরদিকে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দুই লাখ কোটি (দুই ট্রিলিয়ন) মার্কিন ডলারের বিল পাস হয়েছে সিনেটে। করোনা মহামারীতে চাকরি হারানো কর্মী ও ক্ষতিগ্রস্ত শিল্পকে সহায়তা করতে এবং জরুরি চিকিৎসা সরঞ্জাম কেনার জন্য এ বিল পাস হয়েছে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে। গতকাল বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়।

এদিকে সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, গত বুধবার মার্কিন কংগ্রেসে পাস হওয়া এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় অঙ্কের বিল এটি। করোনা মহামারীতে চাকরি হারানো কর্মী ও ক্ষতিগ্রস্ত শিল্পকে সুরক্ষা দেয়ার পাশাপাশি জরুরি চিকিৎসা সরঞ্জাম কেনার জন্য এ অর্থ ব্যয় করা হবে। বুধবার সিনেটের এক সভায় বহু তর্ক-বিতর্কের পর ৯৬-০ ভোটে বিলটি পাস হয়। বিশাল অংকের অর্থ সহায়তার এ বিলটি অনুমোদনের জন্য এবার কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে (হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস) পাঠানো হয়েছে। সেখানে বিলটি পাস হলেই দ্রুত সই করে এটিকে আইনে পরিণত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

পাস হওয়া বিলে করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত শিল্প খাতে ৫০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং কয়েক মিলিয়ন মার্কিন পরিবারকে তিন হাজার ডলার করে আর্থিক সহায়তা দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এছাড়াও, দেশটির ক্ষুদ্র ব্যবসার জন্য ৩৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ সুবিধা, বেকার ভাতা হিসেবে ২৫০ বিলিয়ন ডলার এবং হাসপাতালসহ স্বাস্থ্য খাতে কমপক্ষে ১০০ বিলিয়ন ডলার অর্থ সহায়তা দেয়া হবে।