• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ মহররম ১৪৪২, ০৭ আশ্বিন ১৪২৭

অভিশংসন রুখতে মরিয়া ট্রাম্প

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২০

মার্কিন সিনেটে অভিশংসন তদন্ত পুরোপুরি বাতিলের আহ্বান জানালেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। অন্যদিকে বিরোধী ডেমোক্র্যাটরা নানাভাবে এই তদন্ত সফল করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। মার্কিন সংসদের নিম্নকক্ষে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্তের পর উচ্চকক্ষে এবার সেই প্রক্রিয়ার তোড়জোড় চলছে। সেখানে ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান দলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকা সত্ত্বেও ট্রাম্পকে ক্ষমতাচ্যুত করার ঝুঁকি পুরোপুরি দূর হচ্ছে না। ডয়চে ভেলে।

হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সব তথ্যপ্রমাণ সিনেটের হাতে তুলে দেয়ার পর তদন্ত কমিটির সদস্যরা সেগুলো যাচাই করে তারপর সাক্ষী তলবের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে চান। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে তৃতীয় অভিশংসন তদন্তকে ‘লোক দেখানো’ করে তোলার বদলে আন্তরিক উদ্যোগের জন্য সিনেটের ওপর চাপ বাড়ছে। পেলোসি সিনেটের সদস্যদের সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, নতুন সাক্ষীদের বয়ানের সুযোগ না দিলে তাদের মূল্য চোকাতে হবে। গত মঙ্গলবার তিনি ডেমোক্র্যাটিক দলের নেতাদের সঙ্গে মিলে পরবর্তী পদক্ষেপ স্থির করতে চান। এমনই প্রেক্ষাপটে সিনেটের উদ্দেশ্যে অভিশংসন তদন্ত পুরোপুরি বাতিল করার ডাক দিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। গত রোববার এক টুইটার বার্তায় এমন চাঞ্চল্যকর প্রস্তাব রাখেন তিনি। ট্রাম্পের মতে, সিনেট আদৌ অভিশংসন তদন্তের পথে এগোলে বিরোধী ডেমোক্র্যাট দলের ‘উইচ হান্ট’ বা তার বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত প্রক্রিয়াকে বিশ্বাসযোগ্যতা দেয়া হবে। ট্রাম্প নিজেকে নির্দোষ হিসেবে দাবি করে বলেছেন, তিনি সারা জীবন এ অপবাদ বয়ে বেড়াতে চান না।

সাবেক জাতীয় উপদেষ্টা জন বোল্টন সাক্ষ্য দেয়ার আগ্রহ দেখানোর পর থেকে ট্রাম্প আরও দুশ্চিন্তায় ভুগছেন। ইউক্রেন কেলেঙ্কারির বিষয়ে বোল্টনের সাক্ষ্য ট্রাম্পের জন্য অত্যন্ত অস্বস্তিকর হয়ে উঠতে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে। রাজনৈতিক স্বার্থে তিনি ইউক্রেনের ওপর অন্যায় চাপ সৃষ্টি করে ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন- এমন অভিযোগের পক্ষে আরও তথ্যপ্রমাণ প্রকাশ্যে এলে রিপাবলিকান দলের ঐক্যে ফাটল ধরতে পারে। তাদের ওপর আরও চাপ সৃষ্টি করতে নি¤œ কক্ষই সরাসরি বোল্টনকে তলব করার ইঙ্গিত দিচ্ছে। ট্রাম্প বিশেষ ক্ষমতা প্রয়োগ করে বোল্টনকে সাক্ষ্য দেয়া থেকে বিরত করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। এখন পর্যন্ত রিপাবলিকান দল ঐক্যবদ্ধভাবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন দেখিয়ে চলেছে। তবে সাক্ষী তলবের প্রশ্নে সামান্য হলেও কিছু মতপার্থক্য দেখা যাচ্ছে। ইরানের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্টের আরও সামরিক পদক্ষেপের আগে কংগ্রেসের অনুমোদনের প্রশ্নে কয়েকজন রিপাবলিকান সংসদ সদস্য বিরোধী ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রতি সমর্থনের আভাস দিচ্ছেন। অভিশংসন তদন্তের ক্ষেত্রেও এমন ‘বিচ্যুতি’ ট্রাম্পের জন্য বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের কয়েক মাস আগে এমন ঘটনা ট্রাম্পের জন্য মোটেই সুখকর হতে পারে না বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন।