• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় গুতেরেস

প্রকৃতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ বন্ধ করতে হবে

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , মঙ্গলবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, বিশ্বকে ‘প্রকৃতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ’ বন্ধ করতে হবে। এবং একইসঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় আরও রাজনৈতিক সদিচ্ছা জাগাতে হবে। মাদ্রিদে দু’সপ্তাহের বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন শুরুর আগেরদিন (গত রোববার) এমন মন্তব্য করেন গুতেরেস । এদিকে, স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে গতকাল সোমবার শুরু হয়েছে জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন কপ-২৫।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম জানায়, সোমবার শুরু হওয়া দু’সপ্তাহব্যাপী এ সম্মেলন আগামী ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে । এ সম্মেলন চিলিতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও দেশটিতে চলমান বিক্ষোভের কারণে এটি স্পেনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে এবারের সম্মেলনে সভাপতিত্ব করছেন চিলির পরিবেশমন্ত্রী ক্যারোলিনা স্মিথ সালদিভার। এ সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন বিশ্বের দুইশ’টি দেশের প্রতিনিধিরা। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এতে যোগ দিচ্ছেন। বিশ্বব্যাপী দাবানল থেকে শুরু করে বন্যার মত চরমভাবাপন্ন আবহাওয়া মনুষ্যসৃষ্ট বিশ্ব উষ্ণায়নেরই ফল। এমন পরিস্থিতি ২০১৫ সালের প্যারিস জলবায়ু চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য সম্মেলনে বাড়তি চাপ সৃষ্টি করেছে। প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে বিশ্বের তাপমাত্রা বৃদ্ধির রাশ টেনে ধরতে একমত হন নেতারা। এবার ২ থেকে ১৩ ডিসেম্বরের জলবায়ু সম্মেলনের আগে গুতেরেস বলেছেন, ‘প্রকৃতির বিরুদ্ধে আমাদেরকে যুদ্ধ বন্ধ করতে হবে এবং আমরা জানি সেটি সম্ভব। বিজ্ঞান বলছে আমরা তা করতে পারব।’ তিনি আরও বলেন, ‘কয়েক দশক ধরে মানবজাতি এই বিশ্বব্রহ্মান্ডের সঙ্গে যুদ্ধ করে আসছে। আর এর পাল্টা আঘাতও এখন আসতে শুরু করেছে।’ বিশ্বের বড় বড় অর্থনীতির দেশগুলো কার্বন দূষণ কমাতে যথেষ্ট চেষ্টা করছে না বলেও এসময় সমালোচনা করেন গুতেরেস। জলবায়ু পরিবর্তন বর্তমান বিশ্বের প্রধান একটি সংকট। তাই সম্মেলনটি বেশ গুরুত্ববহ। ধারণা করা হচ্ছে, কার্বন নিঃসরণ কমানোর জন্য আগে যেসব লক্ষ্য নির্ধারিত হয়েছিল, এবারের স্পেনের সম্মেলনে সেসব লক্ষ্যমাত্রা আরও বাড়ানোর প্রশ্নটি আলোচিত হবে। এ সম্মেলনকে সামনে রেখে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, বিশ্ব এমন এক অবস্থায় পৌঁছে যাচ্ছে যেখান থেকে ফিরে আসার আর কোন সুযোগ থাকবে না। জলবায়ু সঙ্কট অনিবার্য। তাই এটি মোকাবিলায় রাজনৈতিক নেতাদের এখনই পদক্ষেপ নিতে হবে। আগামী ১২ মাস সামনে রেখে, এ সংকটময় সময়ে, বিশেষ করে অতিরিক্ত কার্বন নিঃসরণকারী প্রধান দেশগুলো থেকে কার্বন নিঃসরণ কমানোর প্রতিশ্রুতি আদায় করতে হবে। ২০৫০ সালের মধ্যে গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণে নিরপেক্ষতা অর্জন করতে হবে। তিনি বলেন, খননের মাধ্যমে জ্বালানি আহরণ বাদ দিয়ে জ্বালানির চাহিদা পূরণে নবায়নযোগ্য শক্তি ও প্রাকৃতিক সমাধানের দিকে আগাতে হবে। এদিকে, বিশ্বের অধিকাংশ দেশই প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে।