• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, ২৩ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

ফাউন্ডেশনের অর্থ অপব্যবহার

ট্রাম্পকে ২০ লাখ ডলার জরিমানা

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , শনিবার, ০৯ নভেম্বর ২০১৯

২০১৬ সালে নির্বাচনি প্রচারণায় নিজ দাতব্য সংস্থা দ্য ডোনাল্ড জে ট্রাম্প ফাউন্ডেশন থেকে অর্থ অপব্যবহারের দায়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ২০ লাখ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রার ১৬ কোটি টাকা) জরিমানা করেছে নিউ ইয়র্কের একটি আদালত। একইসঙ্গে বিচারক স্যালিয়ান স্কারপুলা জরিমানার এ অর্থ ট্রাম্পের সঙ্গে কোনো ধরনের সম্পর্ক নেই এমন ৮টি অলাভজনক প্রতিষ্ঠানকে দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার এ রায় দেয়া হয়। বিবিসি।

ট্রাম্পের রাজনৈতিক স্বার্থে ওই সংস্থাটি ব্যবহৃত হতো- কৌঁসুলিদের এমন অভিযোগের পর ২০১৮ সালে দ্য ডনাল্ড জে ট্রাম্প ফাউন্ডেশনটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। বৃহস্পতিবার রায় ঘোষনা সময় বিচারক সালিয়ান স্কারপুলা বলেন, ট্রাম্প এবং তার তিন সন্তান তাদের পরিচালিত এ দাতব্য প্রতিষ্ঠানটিকে রাজনৈতিক কাজে ব্যবহার করতে পারেন না । । নির্বাচনি প্রচারণার সময় খরচ করা অর্থ ট্রাম্পকেই পরিশোধ করতে হবে। আমি ট্রাম্পকে ২০ লাখ ডলার জরিমানা দিতে বলেছি। ট্রাম্প ফাউন্ডেশন এখন থাকলে এ টাকা সেখানেই জমা হতো। তবে এবার এমন আটটি সংগঠনে এ অর্থ দেয়া হবে যার সঙ্গে ট্রাম্প সংশ্লিষ্ট নন।’ তিনি বলেন, ট্রাম্প ফাউন্ডেশনের টাকা নিয়ে নির্বাচন করে তার দায়িত্বে অবহেলা করেছেন। নিউ ইয়র্কের অ্যাটনি জেনারেল লেতিতিয়া জেমস বলেন, সংস্থাটির অন্য তিনি পরিচালক ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র, এরিক ট্রাম্প এবং ইভাঙ্কা ট্রাম্পের বাধ্যতামূলক প্রশিক্ষণ প্রয়োজন, যে দাতব্য সংস্থার অর্থ কর্মকর্তারা কিভাবে ব্যয় করতে পারেন। ট্রাম্পের দাবি এ মামলা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। এজন্য নিউ ইয়র্কের ডেমোক্র্যাটদের দোষারোপ করেন তিনি। ট্রাম্পকে জরিমানার পাশাপাশি ফাউন্ডেশনটির বাকি তিন পরিচালক ডনাল্ড জুনিয়র, এরিক ও ইভাঙ্কাকে ‘দাতব্য সংস্থার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা ও পরিচালকদের’ কাছ থেকে বাধ্যতামূলক প্রশিক্ষণও নিতে হবে বলে জানিয়েছেন নিউ ইয়র্কের অ্যাটর্নি জেনারেল লেতিসিয়া জেমস। নিজের নামে প্রতিষ্ঠিত দাতব্য সংস্থার অর্থ অপব্যবহারের এ মামলাটি নিয়ে ট্রাম্প শুরু থেকেই ত্যক্ত বিরক্ত। তিনি অভিযোগ করেন, নিউ ইয়র্কের ধুরন্ধর ডেমোক্র্যাটরা ‘আমাকে ফাঁসানোর জন্য সবকিছুই করছে’ বলেও । ট্রাম্পের আইনজীবীরাও ২০১৮ সালের জুনে নিউ ইয়র্কের সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল বারবারা আন্ডারউডের করা এ মামলাটিকে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ হিসেবে অভিহিত করেছিলেন।