• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ৬ জৈষ্ঠ্য ১৪২৫, ১৪ রমজান ১৪৪০

ডিব্রিফিং শেষ

ছুটিতে অভিনন্দন

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক

| ঢাকা , শনিবার, ১৬ মার্চ ২০১৯

image

পুলওয়ামা হামলাকে কেন্দ্র করে পাকিস্তানের আকাশ সীমা লঙ্ঘন করে ইসলামাবাদ কর্তৃপক্ষের হাতে আটক হওয়ার পর মুক্তি পাওয়া ভারতীয় বৈমানিক উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে অভিযান সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ (ডিব্রিফিং) শেষ হয়েছে। এ ব্রিফিং শেষ হওয়ায় চিকিৎসকদের পরামর্শে অভিনন্দন ছুটিতে যাচ্ছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রের বরাতে ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই জানিয়েছে। হিন্দুস্তান টাইমস।

সূত্রটি জানায়, ডিব্রিফিংয়ে অভিনন্দন বিমানযুদ্ধ থেকে শুরু করে মুক্তি পাওয়া পর্যন্ত ঘটা বিভিন্ন বিষয়ের বর্ণনা দিয়েছেন। তার সঙ্গে কথা বলেছেন ভারতীয় বিমানবাহিনীসহ দেশটির বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা। সেখানে তাকে পুরো ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিত বিবরণ দিতে হয়েছে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামা নামক স্থানে এক আত্মঘাতী হামলায় দেশটির আধা-সামরিক বাহিনী সিআরপিএফের ৪০ সদস্য প্রাণ হারান। এ হামলার দায় স্বীকার করে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ। ২৬ ফেব্রুয়ারি ভারত পাকিস্তানের ভেতরে ঢুকে সংগঠনটির ঘাঁটিতে বিমান হামলা চালিয়ে বোমা বর্ষণের দাবি করে। এর জবাবে ২৭ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানি বিমান ভারতের সীমানার ভেতরে ঢুকে। সেখানে দুই দেশের জঙ্গিবিমানের মধ্যে শুরু হয় যুদ্ধ। পাকিস্তানি বিমানের গুলিতে ভূপাতিত হয় ভারতীয় বৈমানিক অভিনন্দন বর্তমানের বিমান। তিনি নিজেও একটি পাকিস্তানি বিমান ভূপাতিত করেন। পরবর্তীতে ১ মার্চ শান্তি নিশ্চিতে ‘সদিচ্ছার স্মারক’ হিসেবে তাকে মুক্তি দেয় পাকিস্তান। সূত্র জানায়, ভারতীয় সেনাবাহিনীর রিসার্চ অ্যান্ড রেফারেল হাসপাতালের চিকিৎসকদের পরামর্শে কয়েক সপ্তাহের জন্য অসুস্থতাজনিত ছুটিতে যাচ্ছেন বৈমানিক বর্তমান। আগামীতে একটি মেডিকেল বোর্ড বিবেচনা করে দেখবে অভিনন্দনের জঙ্গিবিমান চালানোর শারীরিক সক্ষমতা আছে কিনা। শারীরিকভাবে সুস্থ থাকলে তিনি আবার জঙ্গিবিমানের বৈমানিক হিসেবে কর্মক্ষেত্রে যোগ দিতে পারবেন।

দেশটির বিমানবাহিনীর প্রধান এয়ার মার্শাল বিএস ধানোয়া আগে থেকেই জানিয়ে রেখেছেন, শারীরিকভাবে সুস্থ থাকলে স্বপদে ফিরবেন অভিনন্দন। এর আগে মুক্ত হওয়ার পর ভারতীয় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে অভিনন্দনের আলাপচারিতার কথা উদ্ধৃত করে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছিল, পাকিস্তানে বন্দী অবস্থায় তাকে কোন শারীরিক নিগ্রহের শিকার হতে না হলেও মানসিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে।