• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ২৩ মে ২০২০, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৯ রমজান ১৪৪১

৭ মাসেই মামলার নিষ্পত্তি

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , শুক্রবার, ২৫ অক্টোবর ২০১৯

মাত্র ৭ মাসে বহুল আলোচিত নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার রায় দেয়া হয়েছে। মাত্র ৬১ কার্যদিবসে চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত সবার ফাঁসির রায় দিয়েছেন আদালত। গতকাল সকাল সোয়া ১১টার দিকে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ এ রায় ঘোষণা করেন। এদিন কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের মধ্য দিয়ে সকাল ৯টার দিকে ১৬ আসামিকে আদালতে নেয়া হয়। সব আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করা হয়। এ হত্যার ঘটনা পুরো দেশকে কাঁপিয়ে তোলে। নিন্দার ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। শিরোনাম হয় বিশ্ব গণমাধ্যমেও। বিচারের দাবিতে সোচ্চার হয়ে ওঠে গোটাদেশ।

চাঞ্চল্যকর এ মামলা গত ১০ এপ্রিল পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) হস্তান্তর করা হয়। তদন্ত শেষে ২৯ জুন পিবিআই ১৬ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। আদালত ২৭ জুন থেকে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে মোট ৬১ কার্যদিবসে ৮৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে ২৪ অক্টোবর রায়ের দিন ধার্য করেন। গত ৩০ সেপ্টেম্বর মাত্র ছয় মাসে আলোচিত এ হত্যাকাণ্ডের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গতকাল রায়ের দিন ধার্য করেন একই বিচারক।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পাবালিক প্রসিকিউটর (পিপি) হাফেজ আহাম্মদ বলেন, নুসরাতের রায়ের দিকে গোটদেশের মানুষ তাকিয়ে ছিল। রাষ্ট্রপক্ষ আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে তথ্য-প্রমাণ উপস্থাপন করতে সমর্থ হয়েছে। তাই প্রত্যেক আসামির সর্বোচ্চ সাজা হবে বলে আমাদের আশা ছিল। আদালতের রায়ে তা-ই হয়েছে।

এদিকে আলোচিত এই রায় ঘিরে জেলা শহর, আদালত এলাকা ও সোনাগাজী উপজেলায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। যে কোন অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা এড়াতে বুধবার রাত থেকে নুসরাতদের বাড়িতে পাহারা জোরদার করা হয়। প্রহরায় নিয়োজিত আগের তিন পুলিশ সদস্যের সঙ্গে আরও ৯ সদস্যকে যুক্ত করা হয়। আত্মীয়স্বজন ও পরিচিত লোকজনও রেজিস্টার খাতায় সই না করে ওই বাড়িতে ঢোকার অনুমতি পাচ্ছেন না। গত ৭ এপ্রিল থেকে বাড়িটিতে পুলিশ পাহারা বসানো হয়।