• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ২২ জিলকদ ১৪৪১

গণপরিবহনের

৫০ শতাংশ চালক-হেলপার চোখে কম দেখেন

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , সোমবার, ১৩ মে ২০১৯

image

প্রচন্ড গরম তার ওপর যানজটে আটকা পড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যাত্রীরা চরম অতিষ্ঠ। মেট্রোরেলের কাজ, রাস্তার খোঁড়াখুঁড়িতে রাজধানীর সড়কে যানজটের যন্ত্রণা নিত্যদিনের -সংবাদ

শহরের গণপরিবহন চালক ও হেলপারদের ৫০ শতাংশ চোখে কম দেখেন বা ক্ষীণ দৃষ্টি সম্পন্ন। গত মাসে গণপরিবহনের ১ হাজার ২০০ চালকের ওপর সমীক্ষা চালিয়ে এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে কিছু চালকের চোখের সমস্যা এতটাই প্রকট যে তাদের অস্ত্রোপচার করা প্রয়োজন। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের রোড সেফটি প্রোগ্রাম ও জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল-ঢাকা ওয়েস্টের এক যৌথ গবেষণায় এসব কথা উঠে এসেছে। রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে গত ২৩ ও ২৪ এপ্রিল সমীক্ষাটি পরিচালনা করা হয়। গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ৫০ শতাংশ চালক যাদের বেশিরভাগই বাস চালান, চালকের সহকারী ৪৯ শতাংশ ও বাকিরা চালক ও তাদের সহকারী। অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ২৯ শতাংশের বয়স ৩১-৪০ বছরের মধ্যে ২৭ শতাংশের বয়স ৪০-৫০ বছরের মধ্যে ও ১৯ শতাংশের বয়স ৫১-৬০ বছরের মধ্যে। যাদের দৃষ্টিশক্তিতে সমস্যা রয়েছে তাদের মধ্যে ৭৬ শতাংশের চশমা বা নিয়মিত ওষুধের প্রয়োজন রয়েছে। চোখে অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন রয়েছে ১২ দশমিক ৭ শতাংশের।

ব্র্যাকের রোড সেফটি প্রোগ্রামের প্রধান কামরান উল বাসেত বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) সদর দফতরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এই গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানে বিআরটিএ’র সড়ক নিরাপত্তা বিভাগের পরিচালক মাহবুব-ই-রব্বানী বলেন, লাইসেন্স দেয়ার আগে চোখ পরীক্ষা করে বিআরটিএ। কিন্তু এতে সমস্যা থাকতে পারে বলেও স্বীকার করে নেন তিনি।

জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক জহরুল ইসলাম বলেন, চালকদের অবশ্যই পরীক্ষা করে দেখা প্রয়োজন। এর জন্য আমাদের জাতীয় পর্যায়ে একটি নীতিমালা প্রয়োজন। ব্র্যাকের রোড সেফটি প্রোগ্রামের পরিচালক আহমেদ নাজমুল হোসেন বলেন, চালকদের দৃষ্টিশক্তি নিয়ে এর আগে আমরা কিছুই জানতাম না। এ ধরনের গবেষণা এটাই প্রথম।