• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

রাজমিস্ত্রি পেশার আড়ালে জাল সৌদি রিয়াল বিক্রি

৭ প্রতারক গ্রেফতার

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , শনিবার, ১৬ মার্চ ২০১৯

তারা প্রত্যেকেই পেশায় রাজমিন্ত্রি। কিন্তু জাল সৌদি রিয়েল আসল বলে কম টাকায় বিক্রি করাটা তাদের মূল পেশা। আত্মীয়স্বজনদের কাছ থেকে পেয়ে পরিবারের প্রয়োজনে বিক্রি করার কথা বলে জাল সৌদি রিয়াল বিক্রি করে তারা ইতোমধ্যে কোটি টাকাও হাতিয়ে নিয়েছে। এ চক্রের সদস্যরা রাজধানীসহ আশেপাশের জেলায় সবচেয়ে বেশি সৌদি জাল রিয়েল বিক্রি করত। পাশাপাশি অন্যান্য দেশের জাল মুদ্রা, ডলারও তারা বিক্রি করে হাতিয়ে নিয়েছে বিপুল পরিমাণ অর্থ। রাজধানীর উত্তরা ও টঙ্গি এলাকায় এমন প্রতারক চক্রের সাত সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১। গ্রেফতারকৃতরা হলো আবু শেখ (৩৮), শাহিন মাতব্বর (৩৭), মহসিন মিয়া (৪৫), আবুল বাশার (৪০), কামরুল শেখ (৩৫), ইরারত মোল্লা (২৭), আবদুর রহমান মোল্লা (৪০)। এ সময় দেড় হাজার রিয়েল, নগদ ৩ হাজার ৮২২ টাকা ও ১০টি মুঠোফোন সেট উদ্ধার করা হয়। র‌্যাব-১-এর সিও (কমান্ডিং অফিসার) লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম বলেন, ‘প্রতারক চক্রের সদস্যরা রংমিস্ত্রির কাজ করার সুবাদে বিভিন্ন বাসাবাড়িতে গিয়ে বয়স্ক লোকদের টার্গেট করে কম দামে রিয়েল বিক্রির কথা বলত। রিয়ালের বান্ডিলের মধ্যে দুই চারটি ভালো নোট দিয়ে বাকিগুলো সাদা কাগজ কিংবা অন্য কিছু দিয়ে এমনভাবে বান্ডিল করত, যা দেখে বোঝার কোন উপায় থাকত না। পরবর্তী সময়ে বান্ডিল খুলে গুনতে গিয়ে প্রতারণার বিষয়টি ধরা পড়ত।’একইভাবে প্রতারক চক্রের সদস্যরা হজ মৌসুমে গ্রাম থেকে আসা হজযাত্রীদের টার্গেট করত। তারা রিয়াল বিক্রির সময় এমন পরিবেশ তৈরি করত যেন বেশি দেরি করলে পুলিশ চলে আসবে এই ভেবে ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়েই তাড়াহুড়ো করত। রিয়াল বিক্রির পর প্রতারক সদস্য চলে গেলে বান্ডিল খুলে বুঝতে পারত যে, বান্ডিলে বেশিরভাগই সাদা কাগজ বা জাল রিয়েল। এমনিভাবে গুলশান-বনানীর ব্যস্ত সড়কে গাড়ি যখন যানজটে পড়ে থাকে তখন এই প্রতারক সদস্যরা গাড়ির লোকদের কম দামে রিয়াল বিক্রির প্রলোভন দেখাত। অল্প দামে বিদেশি মুদ্রা কিনতে পারায় ক্রেতারাও খুশি থাকতেন। কিন্তু গুনতে গিয়ে বুঝতে পারতেন, আসলেই তারা প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

র‌্যাবের সিও লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম বলেন, কিছু অভিযোগ পেয়ে র‌্যাব অনুসন্ধানে নামে প্রতারক শনাক্ত করে। পরে অবস্থান নিশ্চিত করে গত ১৪ মার্চ রাতে উত্তরা ও গাজীপুরের টঙ্গি এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ চক্রের সাত প্রতারককে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১ হাজার ৫০০ রিয়াল ও ১০টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। র‌্যাবের সিও আরও বলেন, ‘রংমিস্ত্রি কাজের পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে এ প্রতারক চক্রটি সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা এরইমধ্যে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে স্বীকার করেছে। আজ শনিবার তাদের আদালতে পাঠানো হবে।’