• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬, ১৪ শাবান ১৪৪১

যেখানে দুর্নীতি সেখানে অভিযান -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯

দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান চলবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, কোন সেক্টরকে টার্গেট বা আলাদা করে দেখা হচ্ছে না। যেখানেই দুর্নীতি ও অনিয়ম হচ্ছে, সেখানেই অভিযান চালানো হচ্ছে। কোন এলাকাকে আলাদা করে দেখা হচ্ছে না। গতকাল দুপুরে রাজধানীর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএফডিসি) হলরুমে আয়োজিত ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি। সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার এগিয়ে চলছে বিষয়ের ওপর এই ছায়া সংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যেখানেই অনিয়ম ও দুর্নীতি হচ্ছে, সেখানেই প্রধানমন্ত্রী সঠিক ব্যবস্থা নিচ্ছেন। ক্যাসিনো ও টেন্ডারবাজি বড় বিষয় নয়, যেখানেই অনিয়ম ও দুর্নীতি হবে সেখানেই অভিযান চলবে। প্রধানমন্ত্রী দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য কতগুলো জিনিসের ওপর জোর দিয়েছেন। তিনি জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমন করেছেন। এই টার্মে এসে তিনি সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে চাচ্ছেন। সুশাসনের ভিত্তিতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। আমাদের মাঝে যে স্বপ্নের বাংলাদেশ রয়েছে সেটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী কাজ করছেন। দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যেতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এজন্য সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সব পর্যায় ঢেলে সাজানো হচ্ছে। যাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য সাসটেইনেবল সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠা করা যায়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এখন মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। মাদকের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন। আমরা সেটি বাস্তবায়নে কাজ করছি। নতুন প্রজন্মের কাছে আহ্বান রাখব তারা যেন মাদক না নেয়। আমরা চাই না নতুন প্রজন্ম একটি ভুলের মধ্য দিয়ে হারিয়ে যাক। আমরা যে নতুন বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখি, সেটি যেন তরুণ প্রজন্ম বাস্তবায়ন করতে পারে। সুশাসনের কারণে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২০০৮ আমরা যখন নির্বাচনের মাধ্যমে সরকারের ক্ষমতায় আসি তখন দেশে পূজাম-প ছিল ৯ হাজার বা ১০ হাজারের মতো। বর্তমানে সে সংখ্যা ৩২ হাজারের কাছাকাছি। শুধু পূজাম-প নয়, দেশে এমন কোন জেলা নেই যেখানে বৌদ্ধ ধর্মের কোন প্যাগোডা নেই। সব ধর্মের প্রতিনিধিরা নির্বিঘ্নে বাংলাদেশে থাকছেন। কে মুসলিম, কে হিন্দু, কে বৌদ্ধ, কে খ্রিস্টান, কে পাহাড়ি, কে নৃ-গোষ্ঠী আমরা তা দেখছি না। আমাদের কাছে সবাই বাঙালি। সবাই মিলেমিশে দেশকে এগিয়ে নিতে চাই।

আবরার হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যার ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। ঘটনার পর যারা দোষী ছিল তাদের ধরা হয়েছে। তারাও মেধাবী শিক্ষার্থী। কিন্তু তাদের মস্তিষ্ক এভাবে বিকৃত হবে এটা আমরা কখনও ভাবিনি। অতি দ্রুত আবরার হত্যার চার্জশিট জমার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। একটি নির্ভুল চার্জশিট তৈরির কাজ চলছে। বিতর্কের বিষয়ের পক্ষে বিজিএমইএ বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিপক্ষে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। এতে পক্ষে থাকা বিজিএমইএ বিশ্ববিদ্যালয় জয়ী হয়।