• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ১৪ সফর ১৪৪২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৭

যে যেখানে আছেন সেখানেই থাকুন যারা ফেরিঘাটে আছেন বাসায় ফিরে আসেন আইজিপি

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , বুধবার, ২০ মে ২০২০

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে জনগণকে ঈদে ঘরে থাকার আহবান জানিয়েছেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ। সামনের ঈদুল আজহা বা তার পরের ঈদে উৎসব করা যাবে। ঈদের সময়ে শহরে ও গ্রামে যে যেখানে আছেন, তারা যাতে ফুর্তি করতে বের না হন। এতে ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি তৈরি হবে। গতকাল রাজারবাগে পুলিশলাইন অডিটোরিয়ামে আসন্ন ঈদুল ফিতর ও করোনা মহামারীতে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। নিজ বাসস্থানে

থাকার আহ্বান জানিয়ে আইজিপি বলেছেন, দয়া করে নিজের অবস্থান থেকে বের হবেন না। ঢাকা ছাড়বেন না এবং ঢাকায় আসবেন না। এমন কিছু করবেন না যাতে এই উৎসব জীবনের শেষ উৎসব হয়।

আইজিপি বলেন সংক্রমণ এড়াতে সতর্ক থেকে শপিং করতে হবে, স্বাভাবিক সময়ের মতো যাচাই-বাছাই করে কেনাকাটা থেকে বিরত থাকতে হবে। শপিংমলগুলো খোলা হয়েছে। আমরা মার্কেট সমিতির সঙ্গে কথা বলেছি, এসব বিষয়ে সরকার নির্দেশ জারি করেছেন। এক্ষেত্রে মার্কেট সমিতি, সেলসপারসন, ক্রেতা সবাই বিষয়গুলো মেনে চলবেন। ঈদে অনেকেই শপিং করতে গিয়ে কোন স্বাস্থ্য বিধি মানছেন না। এক বছর ঈদে কেনা কাটা না করলে কিছু হবে না। ৫ দোকান দেখে, ১০ দোকান দেখে এক দোকানে শপিংয়ের যে কালচার আমাদের আছে সেটা পরিহার করাই ভালো।’

এবার ঈদে কেঊ এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যাবেন না। যে যেখানে আছেন সেখানেই থাকুন।

আইজিপি বলেন, এপ্রিলের মাঝামাঝি পর্যন্ত দেশে মাত্র ২৪টি জেলায় করোনা সংক্রমণ ছিল। কিন্তু ঢাকা, গাজীপুর এবং নারায়ণগঞ্জ থেকে যখনই মানুষ ভিন্ন জেলায় গিয়েছে তারপর থেকেই সারাদেশে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে।

ঈদের জামাত অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে সরকারের নির্দেশনা মানার আহ্বানও জানান তিনি। সামাজিক দূরত্ব মেনে মসজিদে ঈদের জামাত আদায় করুন। প্রয়োজনে এক মসজিদে একাধিকবার ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ঈদে যাতে ফেরি নৌকা বা ট্রলারে করে কেউ যেতে না পারে এ জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নৌপুলিশকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

যারা ফেরিঘাটে অবস্থান করছেন তারা নিজ বাসায় ফিরে আসুন। প্রয়োজনে আপনাদের বাসায় ফিরে আসার ব্যাপারে পুলিশ সার্বিকভাবে সহযোগিতা করবে। জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে বাধ্য করা বা সান্ধ্য আইন জারি করা হবে কিনা জানতে চাইলে আইজিপি বলেন, সরকারকে সার্বিক বিষয়ে মূল্যায়ন করে সিদ্ধান্ত নিতে হয়। অনেক দেশ বিধি অনুসরণে জনগণের ওপর জোর খাটাচ্ছে। আমরা কোন কপি-পেস্ট করবো না। কোন বল প্রয়োগ করা হবে না জনগণের ওপর লকডাউন মানা কিংবা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলাচলের ক্ষেত্রে। আমি বলব আমরা গত দুই মাস যেভাবে জনগণের সাথে কাজ করেছি; জনগণকে নিয়ে কাজ করেছি সেভাবেই করবো। প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করছেন।