• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৯ রবিউস সানি ১৪৪১

মোবাইলে মেমোরি কার্ড থেকে ছবি নিয়ে ব্ল্যাকমেইল

সংবাদ :
  • বাকী বিল্লাহ

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৩ অক্টোবর ২০১৯

মোবাইল ফোনের মেমোরি কার্ড থেকে ছবি নিয়ে সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীসহ বিভিন্ন পেশার নারীদের সঙ্গে প্রতারণা এবং তাদের ব্ল্যাকমেইল করছে। প্রথমে বন্ধুত্ব গড়ে তুলে সুযোগ বুঝে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

পুলিশের সাইবার অপরাধ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর এক শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং করছেন। একদিন রিকশাযোগে ধানমন্ডির একটি রেস্টুুরেন্টে যাওয়ার পথে তার মোবাইল ফোন হারিয়ে যায়। ওই মোবাইল ফোনের মেমোরি কার্ডে তার ব্যক্তিগত গোপনীয় কিছু ছবি সংরক্ষিত ছিল। দুই মাস পর ওই ছাত্রী তার ফেসবুক মেসেঞ্জারে একটি নোটিফিকেশন দেখতে পান। রাজিব হাসান নামে একটি ফেসবুক আইডি থেকে তাকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায়। ফেসবুকে রাজিব তার অনেক ছবিতে লাইক ও কমেন্ট করে। এরপর ওই ছাত্রী কৌতূহলবশত রাজিবের ফেসবুক আইডির প্রফাইল চেক করেন। তিনি নিশ্চিত হন, রাজিব তার পরিচিত নয়। এর কিছুক্ষণ পরে মেসেঞ্জারে নক পান। এতে সে উল্লেখ করে, ‘আপনার কিছু ছবি আমি পেয়েছি’। এরপর ওই ফেসবুক আইডি থেকে ছাত্রীকে বিরক্ত করতে থাকে। এক পর্যায়ে ওই ছাত্রী তাকে ব্লক করে দেন। এরপর অন্য নামে ফেসবুক আইডি খুলে আবার ওই ছাত্রীকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায়। ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট গ্রহণ করলে ওই যুবক হুমকি দিয়ে বলে, তার সঙ্গে বন্ধু হিসেবে চ্যাট করতে হবে, অন্যথায় তার কাছে থাকা অশ্লীল ছবিগুলো ফেসবুকে ভাইরাল করে দেয়া হবে। অনিচ্ছা সত্ত্বেও তার সঙ্গে চ্যাট চালিয়ে গেলেও ওই যুবকের নোংরা ভাষা দেখে ছাত্রী পুনরায় ব্লক করে দেন। এরপর ওই যুবক আবার অন্য নামে ফেসবুক আইডি খুলে ওই ছাত্রীকে নক করে। ওই ছাত্রী ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট গ্রহণ করলে ওই যুবক তাকে কিছু ছবি ইনবক্স করে এবং হুমকি দিয়ে বলেÑ এবার যদি তাকে ব্লক করা হয়, তাহলে তার কাছে থাকা ছবিগুলো তার কলেজের দেয়ালে পোস্টার আকারে লাগিয়ে দেবে। ১৫-১৬ দিন পর ওই যুবক তার ফেসবুকে ছাত্রীর কাছে ১০ হাজার টাকা দাবি করে। ওই যুবক হুমকি দিয়ে বলে, টাকা দিলে দাও, নইলে তোমার ছবিগুলো শুধু আমি দেখব না, তোমার মা-বাবা ও আত্মীয় সবাইকে ইনবক্স করব। ইন্টারনেটে ভাইরাল করে দেব। সময় দুই ঘণ্টা। আত্মসম্মান রক্ষার্থে ওই ছাত্রী হ্যাকারকে তার কাছে থাকা ৫ হাজার টাকা পাঠায়। এরপরও টাকা চাইলে ওই ছাত্রী বাধ্য হয়ে ঘটনা মা-বাবাকে জানায়। ছাত্রীর বাবা কথা বললেও ওই যুবক ক্ষান্ত না হয়ে তাকেও একই হুমকি দেয়। এরপর ছাত্রীর বাবাও মেয়ের সম্মানের কথা বিবেচনা করে আরও ৫ হাজার টাকা পাঠায়। আর অনুরোধ করে ছবিগুলো মুছে ফেলতে। কিন্তু হ্যাকারের ওপর বিশ্বাস রাখতে না পেরে ওই ছাত্রীর বাবা পুলিশের কাছে অভিযোগ করে। পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ তদন্ত করে রাজিব হাসান ফারাবি নামক ফেসবুক আইডি ব্যবহারকারীকে বরিশাল থেকে গ্রেফতার ও ওই ছাত্রীর হারিয়ে যাওয়া মোবাইল ফোন, সিম কার্ড ও মেমোরি কার্ড উদ্ধার করে। এছাড়া নারী কর্মকর্তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইন্টারনেটে ভাইরাল করার হুমকি দিয়েও টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সংঘবদ্ধ প্রতারক ও ব্ল্যাকমেইলকারী চক্র নারীদের সুযোগ বুঝে জিম্মি করে অর্থ আদায় করছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাইবার ইউনিটের কর্মকর্তারা সাইবার ক্রাইম সম্পর্কে আরও সচেতন হওয়ার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন।