• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, ২২ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

মামলায় অমিত সাহার নাম না থাকায় ক্ষুব্ধ আবরারের বাবা

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক/প্রতিনিধি কুষ্টিয়া

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১০ অক্টোবর ২০১৯

বুয়েটের শেরেবাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে থাকে ছাত্রলীগের উপ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অমিত সাহাসহ কয়েকজন। মেধাবী ছাত্র আবরার আহমেদকে এ কক্ষেই ডেকে এনে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। ঘটনার সময় অমিত সাহা উপস্থিত ছিল। অথচ মামলায় অমিত সাহার নাম নেই। শুধু অমিত সাহাই নয়, গতকাল পুলিশের হাতে আটক হওয়া অভিকে আবরার হত্যার পর নানাভাবে তৎপর থাকতে দেখা গেলেও মামলায় তার নাম নেই। অভিযোগ উঠেছে পুলিশের গাফলতি আর বুয়েট কর্তৃপক্ষের

দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণে অমিত সাহাসহ আবরার হত্যায় অনেকেই আসামি হয়নি। পুলিশ ও বুয়েট কর্তৃপক্ষের এমন কর্মকাণ্ডে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে কার স্বার্থে কাকে রক্ষায় তারা এমন কাজ করেছেন। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ আবরারের পরিবার ও সহপাঠীরা।

আবরারের সহপাঠীদের অভিযোগ, আবরার আহমেদকে হত্যার পর ঘটনা ধামাচাপা দিতে যেমন সব রকম তৎপরতা চালিয়েছে খুনিরা, তেমনি হত্যায় সংশ্লিষ্ট কয়েকজনকে আসামি করা হয়নি পুলিশের গাফলতিতে। এর মধ্যে অন্যতম আসামি হলেন ছাত্রলীগের উপ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অমিত সাহা। তার রুমেই আবরার আহমেদকে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়। অথচ মামলায় অমিত সাহার কোন নামই নেই। তাকে কেন মামলা থেকে বাদ দেয়া হলো, তা নিয়ে বিস্মিত সবাই। প্রশ্ন তৈরি হয়েছে, অমিত সাহাকে মামলা থেকে বাদ দেয়ার মধ্য দিয়ে পুলিশ কাউকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে কি না? মামলার বাদী অমিত সাহাকে আসামি করার দাবি জানালেও ওই সময় পুলিশ তা আমলে নেয়নি।

বুয়েট সূত্র জানায়, অমিত সাহার রুমে শুধু আবরারকেই হত্যা করা হয়েছে এমন নয়। ওই কক্ষে বহু ছাত্রকে নির্যাতন করা হয়েছে। অমিত সাহাসহ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ওই কক্ষে রমরমা আড্ডা থাকত সব সময়। মাদকসেবন থেকে শুরু করে সব ধরনের অসামাজিক কর্মকা- হতো অমিত সাহার কক্ষে। আবরার হত্যার পর ওই কক্ষ থেকে নানা আলামত উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মামলার বাদী আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ টেলিফোনে সংবাদকে জানান, ঘটনার দিন খবর পেয়ে তিনি কুষ্টিয়া থেকে ত্বরিতগতিতে বুয়েটে ছুটে যান। যেতে যেতে বিকেল ৫টা বেজে যায়। আগে থেকেই পুলিশ একটি এজাহার সাজিয়ে অপেক্ষা করছিল তার। তিনি লাশ নিয়ে ওইদিনই কুষ্টিয়া ফিরবেন বলে তাড়াহুড়া ছিল। সাজানো এজাহার দেখিয়ে পুলিশ তাকে বলেছিল, সিসিটিভি ক্যামেরা ফুজেট দেখে আমরা আসামিদের শনাক্ত করেছি। তখন তিনি এজাহার দেখে কিছু কারেকশন করে স্বাক্ষর করেন। তা পরে মামলা হিসেবে রুজু হয়। তিনি বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে অনেকের নাম শুনতে পাই। এর মধ্যে জানতে পারি আবরারকে অমিত সাহার রুমেই হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার সময় অমিত সাহা উপস্থিত ছিল। কিন্তু এজাহার পড়ে যখন দেখি অনেকের নাম থাকলেও এজাহারে অমিত সাহার নাম নেই, তখন পুলিশকে বলি- অমিত সাহা নামে একজনের নাম বাদ পড়েছে। সে ঘটনাস্থলে ছিল এবং তার রুমেই আবরারকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু পুলিশ বলেছে, না অমিত সাহা নামে কারও সম্পৃক্ততা পাইনি। পরে আমি ছেলের লাশ নিয়ে বাড়ি ফেরার তাড়াহুড়ায় চলে আসি। থানা থেকে মামলা ডিবিতে গেলে ডিবি ৩ আসামিকে গ্রেফতার করে। পরে ডিবি থেকে আমাকে ফোন করে ৩ আসামিকে গ্রেফতার করার বিষয়টি জানিয়ে বলা হয়, আমরা আরও ৩ জনকে গ্রেফতার করেছি। বাকিদের গ্রেফতার করার জন্য আমরা তৎপর রয়েছি। তখন ডিবিকেও আমি অমিত সাহাকে গ্রেফতার করার দাবি জানিয়েছি। কিন্তু ডিবি থেকে বলা হয়েছে, মামলায় অমিত সাহার নাম তো দেখছি না। তখন তাদের বলেছি, কীভাবে অমিত সাহার নাম মামলার এজাহার কপি থেকে বাদ পড়েছে। আমি গণমাধ্যমের মাধ্যমে পুলিশের কাছে দাবি জানাচ্ছি, অমিত সাহাকে গ্রেফতার করা হোক। আমি ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করলেও অনেকের নাম এজাহারে আসেনি।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মারধরের সময় ওই কক্ষে উপস্থিত ছিল বুয়েট ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আশিকুল ইসলাম বিটু। আবরারকে মারার পর অন্যদের সঙ্গে বিটুকেও তৎপর দেখা গেছে। বিটুই জানিয়েছে, আবরারকে শিবির সন্দেহে রাত ৮টার দিকে হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে আনা হয়। সেখানে তার মোবাইলে ফেসবুক ও মেসেঞ্জার চেক করে সে। ফেসবুকের লেখা নিয়ে আবরারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ২০১১ নম্বর রুমের সদস্য বুয়েট ছাত্রলীগের উপ-দফতর সম্পাদক ও কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মুজতবা রাফিদ, উপ-সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, উপ-আইন সম্পাদক অমিত সাহা। বুয়েট ছাত্রলীগের ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার সেখানে আসেন। একপর্যায়ে সে রুম থেকে বের হয়ে যায়। আবরারকে দফায় দফায় মারধর করা হয়। একপর্যায়ে লাঠি, ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প, চাপাতি দিয়ে বেধড়ক পেটানো হয় তাকে।

ডিবির এক কর্মকর্তা জানান, অমিত সাহার নাম মামলার এজাহারে না থাকলেও তার রুমে আবরারকে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সময় তার উপস্থিতি ছিল কি না, ঘটনার সঙ্গো তার কোন সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কি না- তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ নিয়ে বিতর্কের কোন সুযোগ নেই।

  • আবরার হত্যাকারীদের সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী

    কিসের ছাত্রলীগ, কাউকে ছাড় নয়, অপরাধীর সর্বোচ্চ শাস্তি হবে

    বুয়েট চাইলে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে পারে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও হল থেকে মাস্তানদের ধরা হবে

    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারের হত্যাকারীদের’ সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, এ নৃসংসতা কেন? এই জঘন্য কাজ কেন? এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

  • তৃতীয় দিনেও উত্তাল বুয়েট

    ভিসির পদত্যাগ দাবি

    শেরেবাংলা হল প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগ লজ্জা প্রকাশ করে ফের হত্যার বিচার চাইল ছাত্রলীগ

    newsimage

    বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে হত্যায় জড়িতদের বিচারের দাবিতে তৃতীয় দিনের মতো আন্দোলন

  • প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায় ফুটে উঠেছে নিষ্ঠুরতার চিত্র

    আবরার ফাহাদের মতো বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শেরে বাংলা হলে থাকেন আরাফাত ও মহিউদ্দিন। আবরারকে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা পিটিয়ে মুমুর্ষু অবস্থায় ফেলে

  • আবরার হত্যায় জাতিসংঘের নিন্দা

    বুয়টে শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ। ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমশিনের পক্ষ থেকে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় শোক ও দুঃখ প্রকাশ করা হয়েছে। পাশাপাশি বাংলাদেশে

  • কুষ্টিয়ায় বুয়েট ভিসি

    এলাকাবাসীর তোপের মুখে পালিয়ে এলেন

    newsimage

    বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ছাত্রলীগ নেতাদের নির্যাতনে নিহত প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের কুষ্টিয়ার

  • আবরার হত্যা

    আবরারকে হত্যা ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে খুনিরা

    গ্রেফতার ছাত্রলীগ নেতা অভি

    মেধাবী ছাত্র আবরার আহমেদ ফাহাদকে হত্যার পর ঘটনা ধামাচাপা দিতে সব রকম তৎপরতা চালিয়েছে খুনিরা। এ জন্য

  • আবরার হত্যা

    ছাত্রলীগের আরও তিনজন রিমান্ডে

    দুই বহিষ্কৃত নেতা ইয়াবা অস্ত্র মামলায় রিমান্ডে

    বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় বুয়েট ছাত্রলীগের আরও তিন জনকে পাঁচদিন করে রিমান্ডে নেয়ার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। গতকাল ঢাকা

  • দেশটা টর্চার সেল : বিএনপি

    সরকার গোটা দেশটাকে টর্চার সেলে পরিণত করেছে বলে মন্তব্য করেছেন জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। গতকাল নয়া

  • বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ

    ঘাতকদের শাস্তি না হলে কঠোর আন্দোলন

    আবরার ফাহাদের এমন মৃত্যুতে শোকে মৃহ্যমান বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ

  • তিন মামলা

    ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

    তিন মামলায় নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। গতকাল ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান রহিবুল ইসলাম এ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।