• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৭, ১৬ জিলকদ ১৪৪১

বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা আজ সব প্রস্তুতি সম্পন্ন

উপাচার্য

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ঢাবি

| ঢাকা , সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) বিভিন্ন বিভাগে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা আজ অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা শুরু হবে সকাল ৯টায়। সকালে ও বিকালে দুই শিফটে ১০টি কেন্দ্রে এ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ৫ অক্টোবর পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পরে তারিখ পরিবর্তন করে। এবার প্রথম বর্ষে ৫টি অনুষদের ১২টি বিভাগে মোট এক হাজার ৬০টি আসনের বিপরীতে আবেদনকারীর সংখ্যা ১২ হাজার ১৬১ জন (৮ হাজার ৮৯৬ জন ছেলে, ৩ হাজার ২৬৫ জন মেয়ে)। এরমধ্যে ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ১ হাজার ৫টি আসনের জন্য আবেদন করে ১০ হাজার ৭৬৩ জন। অন্যদিকে, আর্কিটেকচার বিভাগের ৫৫টি আসনের জন্য আবেদন করে ১ হাজার ৩৯৮ জন। ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

এর আগে ভর্তি পরীক্ষার জন্য গতকাল ও আজ (১৩ ও ১৪ অক্টোবর) আন্দোলন শিথিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এতে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করা সম্ভব হবে বলে আশা করেন আন্দোলনকারীরা। শনিবার দুপুরে বুয়েট ক্যাম্পাসে ক্যাফেটেরিয়ার সামনে আন্দোলনকারীরা এ সিদ্ধান্ত গণমাধ্যমকে জানান।

ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের পরীক্ষা ৯টায় শুরু হয়ে ১২টায় শেষ হবে। অন্যদিকে, আর্কিটেকচার বিভাগের পরীক্ষা দুই ধাপে সকাল ৯টা থেকে ১২টা এবং দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। আবরার হত্যাকা-ের পর অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল ভর্তি কার্যক্রম। তবে সব বাধা অতিক্রম করে ভর্তি পরীক্ষার কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে বুয়েট কর্তৃপক্ষ। গতকাল দুপুরে সাংবাদিকদের একথা জানান বুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, এই দিনটা আমাদের জন্য বিশেষ একটি দিন। প্রায় আড়াই মাস প্রস্তুতি নেয়া হয় এই দিনটির জন্য। উপাচার্য বলেন, অভিভাবকদের বসার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারিনি। আশা করি বিকেলের মধ্যে ব্যবস্থা করা হবে। বহিরাগতদের হলে থাকার বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের হলগুলোতে বিগত সময়ে বহিরাগতদের অবস্থান করতে দেখা গেলেও এবার তা পারিনি। দু’দিন ধরে হলগুলোতে যে অপারেশন চলছে, আশা করি বহিরাগত কেউ হলে অবস্থান করতে পারবে না।

এর আগে শনিবার একাডেমিক কাউন্সিলের বৈঠকে নির্ধারিত সময়েই বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। রাতেই আসন বিন্যাসসহ দাফতরিক নানা কাজ সম্পন্ন করে ভর্তি পরীক্ষা কমিটি।