• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৫, ২২ শাওয়াল ১৪৪০

ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী আর নেই

সংবাদ :
  • সাংস্কৃতিক বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , বুধবার, ০৭ মার্চ ২০১৮

image

মুক্তিযোদ্ধা-ভাস্কর, বীরাঙ্গনা ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পাক হানাদারদের কাছে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন। কিন্তু সেই কথা নিজের ভেতরে চেপে না রেখে বীরদর্পে জাতিকে জানিয়ে হয়ে উঠেছিলেন আমাদের মহান মুক্তিযুুদ্ধে নির্যাতিত নারীদের কণ্ঠস্বর। ৯ মাসের সেই রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে দেশ স্বাধীন হলে দেশের স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার, আল-বদর, আল-শামসের বিচারের জন্য দেশব্যাপী আন্দোলন গড়ে তুলতে পালন করেছেন অনবদ্য ভূমিকা। বিগত ২০১৬ সালে ‘মুক্তিযোদ্ধা’র স্বীকৃতি দিয়ে জাতি তার সেই বীরত্বকে সম্মান জানিয়েছে। যুদ্ধ পরবর্তী বাংলাদেশে তিনি আত্মার খোরাক হিসেবে ভাস্বকর্য শিল্পকে বেছে নেয়া জীবনজয়ী এই মহীয়সী নারী ‘ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী’ পাড়ি দিলেন না ফেরার দেশে। থেমে গেল রাঙালির অনন্য বীর এই নারীর জীবনের পথ চলা।

রাজধানীর ল্যাবএইড ধানমন্ডি শাখায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বেলা পৌনে ১টায় তিনি শেষ নিঃশ^াস ত্যাগ করেন (ইন্নালিলাহি ... রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। তিনি স্বামী আহসানউল্লাহ, তিন ছেলে ও দুই মেয়েসহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি, ডায়াবেটিস ও হৃদরোগে ভুগছিলেন।

ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর এ মহাপ্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, সেতুমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

এদিকে, দেশের আপামর মানুষের প্রিয় মানুষ প্রিয়ভাষিণীর মৃত্যুর খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসেন ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির, মানবাধিকার কর্মী খুশী কবির, চিত্রশিল্পী মনিরুজ্জামান ও গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার, প্রকাশক রবিন আহসান প্রমুখ।

গতকাল দুপুরে ল্যাবএইড হাসপাতাল থেকে ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় তার বারিধারার পিংক সিটির বাড়িতে। সেখানে মরদেহের গোসল সেরে রাখা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয় হাসপাতালের (বিএসএমএমইউ) হিমাগারে।

জাতীয় কবিতা পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক মুহম্মদ সামাদ ও সম্মিলিত সাংস্কৃতি জোট সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ জানান, আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যানারে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নাগরিক শ্রদ্ধানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। এরপর বাদ জোহর ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জানাজা শেষে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে। এছাড়া শনিবার বিকেল ৪টায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যবস্থাপনায় তার নাগরিক স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হবে।

ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী খুলনায় ‘ফেয়ারি কুইন’ নামের বাড়িতে ১৯৪৭ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা সৈয়দ মাহবুবুল হক ও মা রওশন হাসিনা। ১১ ভাই-বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন সবার বড়। তার নানা যুক্তফ্রন্টের শাসনকালের স্পিকার অ্যাডভোকেট আব্দুল হাকিমের সঙ্গে ঢাকায় চলে আসেন তিনি। টিকাটুলীর নারী শিক্ষা মন্দিরে (বর্তমানে শেরে বাংলা বালিকা মহাবিদ্যালয়) তার শিক্ষাজীবন শুরু। পরবর্তীতে তিনি খুলনার পাইওনিয়ার গার্লস স্কুল থেকে মাধ্যমিক ও খুলনা গার্লস স্কুল থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিগ্রি পাস করেন।