• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট ২০১৮, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৫, ২ জিলহজ ১৪৩৯

পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে মোবাইল ফোন ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে মোবাইলফোন ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে শিক্ষা প্রশাসন। কেন্দ্রের ২০০ মিটার বা পরীক্ষা কেন্দ্রের মধ্যে মোবাইলফোনসহ কাউকে পাওয়া গেলে তাকে তৎক্ষণাৎ গ্রেফতার করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালক, সব বিভাগীয় কমিশনার, সব শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান, সব জেলা প্রশাসককে এ নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের উপসচিব আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন স্বাক্ষরিত নির্দেশনা গত ১১ ফেব্রুয়ারি সংশ্লিষ্টদের পাঠানো হয়। এতে বলা হয়, প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধ করে প্রশ্ন ফাঁসের গুজবমুক্ত সুষ্ঠু পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে জরুরি ভিত্তিতে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ‘গত ১ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে সব পরীক্ষার্থীকে আবশ্যিকভাবে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করে আসন গ্রহণ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, বর্ণিত সময়ের পরেও কিছু কিছু কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীরা প্রবেশ করছে। এছাড়া পরীক্ষা কেন্দ্রের আশপাশে অনেকেই স্মার্টফোন নিয়ে ঘোরাফেরা করছে। এ অবস্থায় পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে সব পরীক্ষার্থীর আবশ্যিকভাবে পরীক্ষার হলে প্রবেশ ও আসন গ্রহণ নিশ্চিত করা এবং উক্ত সময়ের পর কোন পরীক্ষার্থীকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া যাবে না।’

তবে জরুরি প্রয়োজনে কেন্দ্র সচিব সাধারণ মানের একটি মোবাইলফোন নিয়ে যেতে পারবেন বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বলে আসলেও সে ব্যাপারে কোন কিছু উল্লেখ করা হয়নি ওই নির্দেশনায়।

সরকার এর আগে ১২ ফেব্রুয়ারি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে ইন্টারনেট ধীরগতির সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। একদিন পরই ওই সিদ্ধান্ত তা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

এ ছাড়াও শিক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ৩০০ মোবাইল ও টেলিফোন নম্বর শনাক্ত করেছে, যেগুলো প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বলে অভিযোগ রয়েছে। এই নম্বরগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এবং অভিযান পরিচালনা করছে পুলিশ।