• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ মহররম ১৪৪২, ১১ আশ্বিন ১৪২৭

নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান তালিকায় অসঙ্গতি : সংশোধনের নির্দেশ

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , সোমবার, ১৮ মে ২০২০

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত হতদরিদ্র ও কর্মহীন ৫০ লাখ পরিবারের মধ্যে আড়াই হাজার টাকা করে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান কর্মসূচির তালিকায় অসঙ্গতি রয়েছে। এ কারণে সংশোধিত তালিকা পাঠানোর জন্য জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ৬৪ জেলার ডিসিদের এই নির্দেশনা দিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় থেকে ডিসিদের কাছে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসজনিত দুর্যোগে মানবিক সহায়তা কার্যক্রমের আওতায় উপকারভোগী পরিবারের তালিকা নির্ধারিত ছকে ডিজিটাল সফটওয়্যার পাঠানোর জন্য গত ৩০ এপ্রিল সব জেলা প্রশাসকের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু আপলোডকৃত পরিবারের তালিকায় অসঙ্গতি থাকায় পুনরায় সংশোধিত তালিকা পাঠানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়। মুজিববর্ষে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ পরিবারের মধ্যে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান কর্মসূচি সংক্রান্ত নির্দেশিকা ভাসমান মানুষ, নির্মাণ শ্রমিক, গণপরিবহন শ্রমিক, রেস্টুরেন্ট শ্রমিক, ফেরিওয়ালা, রেলওয়ে কুলি, মজুর, শ্রমিক, দিনমজুর, রিকশা বা ভ্যানচালক এবং নিম্ন-মধ্যবিত্ত আয়ের লোকসহ মানবিক সহায়তা পাওয়ার যোগ্য পরিবাররা এবং যারা দৈনিক আয়ের ভিত্তিতে জীবিকা নির্বাহ করে এমন জনগোষ্ঠী অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এই পেশাভিত্তিক লোকজন যারা বাদ পড়েছেন তাদেরকে অন্তর্ভুক্ত করে তালিকা চূড়ান্ত করতে হবে। এ পরিস্থিতিতে নির্দেশনা অনুযায়ী সংশোধিত তালিকা আগের নির্দেশনা অনুযায়ী আপলোড করে জরুরি ভিত্তিতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের দুর্যোগ সাড়াদান সমন্বয় কেন্দ্রের ই-মেইলে (dsndrcc@modmr.gov.bd, ndrcc@modmr.gov.bd) রোববারের (১৭ মে) মধ্যে পাঠানোর নির্দেশনা দেয়া হয় ডিসিদের।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে কর্মহীন হয়ে পড়া বিভিন্ন পেশার শ্রমিক ও দুস্থ ৫০ লাখ পরিবারকে ঈদ উপলক্ষে আড়াই হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দিচ্ছে সরকার। গত বৃহস্পতিবার গণভবন থেকে এসব সুবিধাভোগীদের মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টে নগদ অর্থ পাঠানোর কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই কার্যক্রম শুরুর পর অভিযোগ ওঠে, অর্থ আত্মসাতের জন্য কোন কোন তালিকায় একই মোবাইল নম্বর অনেকবার করে ব্যবহার করা হয়েছে।