• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৮ রবিউস সানি ১৪৪১

দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থায় বিশিষ্টজনদের স্বস্তি

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , বুধবার, ০২ অক্টোবর ২০১৯

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণায় দুর্নীতিবাজ ও অসৎ ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা অব্যাহত থাকায় স্বস্তি অনুভব করছেন দেশের বিশিষ্টজনেরা। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নে সব ধরনের অনিয়ম, লুটপাট, সন্ত্রাসবাদী ও দুর্নীতিবাজদের দ্রুততম সময়ে আইনের আওতায় আনার দাবিও জানিয়েছেন তারা।

গতকাল সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদের পাঠানো এক এক যৌথ বিবৃতিতে এমন প্রতিক্রিয়া জানান বিশিষ্টজনেরা। বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন- অ্যাড. সুলতানা কামাল, পঙ্কজ ভট্টাচার্য, সৈয়দ আবুল মকসুদ, ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, রামেন্দু মজুমদার, ডা. সারওয়ার আলী, জিয়াউদ্দিন তারেক আলী, ড. নূর মোহাম্মদ তালুকদার, খুশি কবির, রোকেয়া কবির, অ্যাড. রানা দাশ গুপ্ত, ড. আজিজুর রহমান, রাজিয়া সামাদ ডালিয়া, নাজমুল হক প্রধান, অ্যাডভোকেট এস এম এ সবুর, রোবায়েত ফেরদৌস, সৈয়দ আবদুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী, মেসবাহ্ উদ্দিন আহমেদ, সালেহ আহমেদ, ড. সেলু বাসিত ও অ্যাড. ফয়েজ আহমেদ।

বিবৃতিতে নেতারা বলেন, সারাদেশে মাদকের বিস্তার অবৈধ অস্ত্রের ঝঞ্জঝনানি, ক্ষমতার অপব্যবহার, কতৃত্ববাদ, চাঁদাবাজী, জঙ্গিবাদী তৎপরতা ও জনাতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষপটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা ‘দুর্নীতিবাজ ও অসৎ ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা অব্যাহত থাকবে’ শীর্ষক সংবাদে দেশের সাধারণ মানুষের সঙ্গে আমরাও স্বস্তি অনুভব করছি। সর্বশেষ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে নাগরিক সংবর্ধনায় প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্য বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ায় সুশাসন প্রতিষ্ঠার চেষ্টায় দেশবাসী আশাবাদী হয়ে ওঠবে।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা ঘোষণার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পরিবহনসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দুর্নীতি প্রতিরোধ করা গেলে জনগণের আরো বেশি কল্যাণ, উন্নয়ন সেবারমান বৃদ্ধিসহ জাতীয় অগ্রযাত্রার কথা উল্লেখ করায় আমরা আশাবাদ ব্যক্ত করছি যে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক, শোষণমুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণাকে আমরা সাধুবাদ জানাই। এই ঘোষণায় জনমনে স্বস্তি ও জাাতীয় রাজনীতিতে নবধারার পথ উন্মোচিত হবে বলে আমাদের বিশ^াস।

ইতোমধ্যে বাংলাদেশের উন্নয়নের মডেল আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ব্যাপক প্রশংসার পাশাপাশি সর্বশেষ দুর্নীতিবাজ, লুটেরা, সাম্প্রদায়িকতাবাদীসহ সমাজে সকল নিপীড়নের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান ঘোষণা দেশের ভাবমূর্তিকে যেমন উজ্জ¦ল করবে, তেমনি সমাজে স্থিতিশীলতা, বৈষম্য, নিপীড়নমুক্ত হওয়ার পথ সুগম করবে বলে আমরা মনে করি। একই সাথে ঋণ খেলাপী ও ব্যাংক লুটেরাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনে ব্যাংকিং কমিশন গঠন করে ব্যাংকিং সেক্টরে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতা নিশ্চিত করার দাবীও আমাদের। আমরা দেশবাসীর সাথে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনার পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নে সকল ধরনের অনিয়ম, লুটপাট, সন্ত্রাসবাদী ও দুর্নীতিবাজদের দ্রুততম সময়ে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।