• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, ১৯ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

দারুণ শুরু করেও বাংলাদেশ ১৫৩

সংবাদ :
  • বিশেষ প্রতিনিধি

| ঢাকা , শুক্রবার, ০৮ নভেম্বর ২০১৯

image

অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহর শট খেলার একটি মুহূর্ত

ভারত সফরে তিন ম্যাচ টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচ জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে রাজকোটের সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশ। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটাও দারুণ করেছিল। কিন্তু দুইবার পাওয়া জীবনটাকে কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়েছেন লিটন কুমার দাস। অযথা রান আউট হয়েছেন তিনি। এরপর যুজবেন্দ্র চাহালের জোড়া আঘাতে পাওয়া ধাক্কা সামলে উঠতে পারেনি টাইগাররা। ফলে মাত্র ৩৫ বলে ৫০ রান তোলা বাংলাদেশ দল রাজকোটে সিরিজের দ্বিতীয় টি-২০ ম্যাচে নিজেদের ইনিংসে ছয় উইকেটে তুলতে পেরেছে ১৫৩ রান। জয়ের জন্য ভারতের টার্গেট ১৫৪ রান।

সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের এই পিচের হিসাবে জয়ের জন্য পুঁজি একটু কমই বলা যায়। পরিসংখ্যান বলছে এই মাঠে জয়ী হতে হলে আগে ব্যাট করে কমপক্ষে ১৮০ রান করা চাই। অথচ রাজকোটে বাংলাদেশ দলের ইনিংসটাকে রাজসিক করার পথেই ছিলেন দুই ওপেনার লিটন দাস এবং মোহাম্মদ নাঈম। মারমুখী মেজাজেই ব্যাট চালাচ্ছিলেন তারা। যুজবেন্দ্র চাহালের করা ষষ্ঠ ওভারের তৃতীয় বলে স্ট্যাম্পিংয়ের শিকার হয়েও বেঁচে যান লিটন। বল উইকেট অতিক্রম করার আগেই স্ট্যাম্পের সামনে থেকে বল ধরে বেলস ভেঙেছিলেন ভারতের উইকেট কিপার ঋষভ পন্ট। টিভি আম্পায়ার অনিল চৌধুরীর চোখে বিষয়টা ধরা পড়ায় লিটন আউট হননি। বলটাও ‘নো’ হয়। পরে টানা দুই বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে আত্মবিশ্বাসের জানান দিয়েছিলেন টাইগার ওপেনার। ওই ওভারের চতুর্থ বলে বাংলাদেশের স্কোরও ৫০ স্পর্শ করে। এটা ছিল একবছর পর টি২০তে বাংলাদেশের উদ্বোধনী জুটির ৫০ রান। ভারতের বিপক্ষে আবার প্রথম। ওয়াশিংটন সুন্দরের করা সপ্তম ওভারের তৃতীয় বলে ক্যাচ দিয়ে ফিল্ডারদের জটলায় আবারও বেঁচে যান লিটন। কিন্তু বেশিদূর যাওয়া হয়নি তার। যুজবেন্দ্র চাহালের সপ্তম ওভারের দ্বিতীয় বলে লিটনের বিপক্ষে লেগ বিফোর উইকেটের আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না দিলে দৌড় দিতে গিয়ে রান আউটের শিকার হয়ে ফেরেন ২১ বলে ২৯ রান করা লিটন। ভেঙে যায় ৬০ রানের উদ্বোধনী জুটি ভারতীয় বোলারদের পাত্তা না দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলেন মোহাম্মদ নাঈম। ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে শ্রেয়াস আয়ারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ৩১ বলে পাঁচ বাউন্ডারিতে ৩৬ রান করা এই তরুণ ওপেনার।

প্রথম ম্যাচে জয়ের নায়ক মুশফিকুর রহিম (৪) দলীয় ৯৭ রানে যুজবেন্দ্র চাহালের বলে ফিরলে বাংলাদেশ দল বড় রকমের ধাক্কা খায়। আশার আলো হয়ে জ্বলতে থাকা সৌম্য সরকারও (২০ বলে ৩০ রান) ফেরেন চাহালের বলে। স্ট্যাম্পিংয়ের শিকার হওয়ার আগে দুটো বাউন্ডারির সাথে একটি ছক্কা হাঁকান সৌম্য।

চলতি সিরিজে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ২১ বলে ৩০ রান করে চাহারের শিকারে পরিণত হন। শেষ দিকের ব্যাটসম্যানরা ভারতের বোলিং ডিপার্টমেন্টকে সেভাবে সামাল দিতে না পারায় বাংলাদেশ দল ২০ ওভারে জয় উইকেটে মাত্র ১৫৩ রান তুলতে সক্ষম হয়। আফিফ হোসেন ৬ রান জমা দেন। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ৭ ও আমিনুল ইসলাম ৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

বাংলাদেশ : ২০ ওভারে ১৫৩/৬ (লিটন ২৯, নাঈম ৩৬, সৌম্য ৩০, মুশফিক ৪, মাহমুদুল্লাহ ৩০, আফিফ ৬, মোসাদ্দেক ৭*, আমিনুল ৫*; চাহার ৪-০-২৫-১, খলিল ৪-০-৪৪-১, সুন্দর ৪-০-২৫-১, চাহাল ৪-০-২৮-২, দুবে ২-০-১২-০, ক্রুনাল ২-০-১৭-০)।