• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ১১ ফাল্গুন ১৪২৪, ৬ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

খালেদার মুক্তি দাবিতে সারাদেশে মানববন্ধন বিএনপির

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

image

খালেদার মুক্তির দাবিতে বিএনপির মানববন্ধন। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে তোলা -সংবাদ

দুর্নীতির দায়ে দন্ডিত খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সারাদেশে মানববন্ধন করেছে বিএনপি। মানববন্ধনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, খালেদা জিয়াকে ছাড়া আগামী নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। আর এ লক্ষ্যে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

গতকাল কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বেলা ১১টায় মানববন্ধন শুরু হয়ে ১২টায় শেষ হয়। এই কর্মসূচিতে মির্জা ফখরুলসহ ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, আবদুস সালাম, ফজলুল হক মিলন, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীসহ ঢাকার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিএনপির বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। ২০ দলীয় জোটের নেতারাও মানববন্ধনে অংশ নেন। ঢাকার বাইরেও একই দাবিতে এই কর্মসূচি পালিত হয়। ঢাকায় কর্মসূচিতে বাধা না দেয়া হলেও দেশের বিভিন্ন এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করতে দেয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। কর্মসূচি চলাকালে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুসহ ৮৫ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে বিএনপি। ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ একই সময়ে প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে বিএনপি।

গতকাল মানববন্ধন কর্মসূচিতে মির্জা ফখরুল নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, দেশনেত্রী কারাগারে যাওয়ার আগে বলে গেছেন, আপনাদের ধৈর্য ধরতে, শান্ত হতে এবং শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি চালিয়ে যেতে। আমাদের এই কর্মসূচি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করবার জন্য, আমাদের এই কর্মসূচি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য। এই মুহূর্তে বেগম জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। তার মুক্তি আমরা চাই। খালেদা জিয়াকে নিয়ে বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে মন্তব্য করে তিনি বলেন, চেয়ারপারসনকে ছাড়া দেশে কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। সহায়ক সরকারের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন চাই।

স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, অবিলম্বে চেয়ারপারসনকে মুক্তি দিতে হবে, আমাদের সব নেতার সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

সরকারের উদ্দেশে মির্জা আব্বাস বলেন, ষড়যন্ত্র করে দেশের নির্বাচন বাঞ্চাল করা যাবে না। বাংলাদেশে নির্বাচন হবে এবং সেই নির্বাচন বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়েই হবে। তাকে ছাড়া কেউ নির্বাচন চিন্তা করলে সেটা হবে দুঃস্বপ্ন।

এদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী জানান, শুধু দেশের নয় বিদেশিরাও জানতে চায় আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে সরকার কেন বাধা দিচ্ছে। সরকারের অত্যাচার এখন সারা পৃথিবীর মানুষ জানে। গত ৩০ জানুয়ারি থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সারাদেশে ৪ হাজার ৪০০ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

গতকাল খালেদা জিয়াকে আরও একটি মামলায় গ্রেফতার দেখানো প্রসঙ্গে বিএনপির এই নেতা বলেন, বিএনপির মনোবলকে ভাঙতে চায় সরকার। তারা চায় খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে। কিন্তু তাদের এই চক্রান্ত কোন দিনি বাস্তবায়ন হবে না।