• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৪, ৯ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

ইইউ পার্লামেন্ট প্রতিনিধিদের ইসি

খালেদার নির্বাচনে অংশগ্রহণ আদালতের ওপর নির্ভর করছে

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারেবেন কি-না, বিষয়টি আদালতের ওপর নির্ভর করছে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এক্ষেত্রে ইসির কোন ভূমিকা নেই মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা। গতকাল রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে বাংলাদেশ সফররত ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) পার্লামেন্টারি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে সিইসি এসব কথা জানান। বৈঠকে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন, রাষ্ট্রপতি নির্বাচন এবং বেগম জিয়ার সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়ে জানার আগ্রহ প্রকাশ করেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ইসি’র ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এসব তথ্য জানান।

সিইসির সঙ্গে জিম ল্যামবার্ড-এর নেতৃত্বে ইইউ’র ৮ সদস্যের পার্লামেন্টারি প্রতিনিধি দল বৈঠকে মিলিত হন। ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ও যুগ্ম-সচিব (চলতি দায়িত্ব) এসএম আসাদুজ্জামান এ সময় উপস্থিত ছিলেন। আইন অনুযায়ী, ফৌজদারি মামলায় কারও ন্যূনতম দুই বছর কারাদন্ড হলে, তিনি নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার অযোগ্য হবেন। এই আইনে, বেগম খালেদা জিয়ার ৫ বছর কারাদ- হওয়ায় তিনি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণে অযোগ্য। তবে বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে এবং উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগও রয়েছে।

বেগম জিয়ার নির্বাচনে অংশ নেয়া ইস্যুতে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক গত ৮ ফেব্রুয়ারি (রায়ের পর) বলেছিলেন, ওনার (বেগম জিয়ার) ব্যাপারে আপিল বিভাগ এবং স্বাধীন নির্বাচন কমিশন কী সিদ্ধান্ত নেবেন, সেটা তাদের ব্যাপার। তবে গতকাল ইসি বিষয়টি আদালতের দিকে ঠেলে দিয়ে নিজেদের দায়মুক্ত করল।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার বিষয়ে প্রতিনিধি দলের (ইইউ) এক সদস্য জানতে চেয়েছিলেন। সিইসি তাদের বলেছেন, এটি আদালতের বিষয়। আদালত যদি অনুমতি দেন, তাহলে ইসির কিছু করার নেই। আর যদি অনুমতি না দেন, তাহলেও ইসির কোন ভূমিকা থাকবে না। সচিব বলেন, কমিশন সংবিধান ও আইন অনুযায়ী সবকিছু করবেন।

নির্বাচন প্রক্রিয়া ও ব্যয় নিয়েও আগ্রহ

সিইসির সঙ্গে ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশের আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন এবং রাষ্ট্রপতি নির্বাচন প্রক্রিয়া, নির্বাচনী খরচ সম্পর্কে জানার আগ্রহ প্রকাশ করে। বৈঠকে সিইসি এসব বিষয়ে তাদের আগ্রহের জবাব দেন বলে জানান ইসি সচিব। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, প্রতিনিধি দলের সদস্যরা আগামী সংসদ এবং রাষ্ট্রপতি নির্বাচন সম্পর্কে জানতে চেয়েছে। তারা নির্বাচন প্রক্রিয়া, নির্বাচনী খরচের বিস্তারিত তথ্য জানতে আগ্রহ দেখিয়েছে। সিইসি তাদের বলেছেন, রাষ্ট্রপতি পদে জাতীয় সংসদের সদস্যরা ভোট দিতে পারেন। এবার একজন প্রার্থী হওয়ায় ভোটের প্রয়োজন হয়নি। একমাত্র প্রার্থীকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। নির্বাচনী খরচের বিষয়ে তাদের জানানে হয়, নির্বাচন কমিশনের চাহিদা অনুযায়ী সব নির্বাচনী ব্যয় সরকার বহন করে।