• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৭ ফল্গুন ১৪২৬, ২৫ জমাদিউল সানি ১৪৪১

ক্ষণগণনা : আর ৩০ দিন

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , শনিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

মুজিববষের আর ৩০ দিন বাকি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখতে ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপন করবে সরকার। মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। শত শিশুর কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে মুজিববর্ষের প্রথম দিন আগামী ১৭ মার্চ জাতীয় শিশু দিবসের অনুষ্ঠান শুরু হবে।

১৯৭১ সালে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের যে স্থানে দাঁড়িয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ দিয়েছিলেন, সেখানে ভাষণমঞ্চ নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। একইসঙ্গে বঙ্গবন্ধুর তর্জনী উত্তোলিত সম্বলিত একটি প্রতিকৃতি ওই ভাষণমঞ্চে স্থাপন করারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। গত ১১ ফেব্রুয়ারি আদালতের পূর্ব নির্দেশনা অনুসারে হাইকোর্টে দাখিল করা প্রতিবেদনে সরকারের এসব সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আইন-১ অধিশাখা থেকে পাঠানো প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় হতে সংগৃহীত তথ্যে জানা গেছে যে, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ইতোমধ্যেই স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ প্রকল্পের দুটি পর্যায় সমাপ্ত হয়েছে। যাতে গ্যাস টাওয়ার, শিখা চিরন্তন, স্বাধীনতা জাদুঘর, ফোয়ারা, জলাধার ও উন্মুক্ত মঞ্চ তৈরি করা হয়েছে। তৃতীয় পর্যায়ে আরও কতিপয় কার্যক্রম সংবলিত ডিপিপি পরিকল্পনা কমিশনে দাখিল করা হয়েছে। মূল প্রকল্পের সঙ্গে সমন্বয় রেখে ভাষণমঞ্চ ও বঙ্গবন্ধুর তর্জনী উত্তোলিত প্রতিকৃতি স্থাপন অন্তর্ভুক্ত করে ডিপিপি পুনর্গঠনপূর্বক তা বাস্তবায়নে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আগামী ১৭ মার্চ স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকী। ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত বছরব্যাপী ‘মুজিববর্ষ’ পালন করবে সরকার। ‘মুজিববর্ষ’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ১০০টি পায়রা অবমুক্ত ও ১০০টি বেলুন উড়িয়ে মূল অনুষ্ঠান শুরু হবে। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি থাকবেন বঙ্গবন্ধু কন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।