• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭, ১৪ রবিউল ‍আউয়াল ১৪৪২

ক্ষণগণনা : আর ২ দিন

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , রোববার, ১৫ মার্চ ২০২০

image

মুজিববর্ষের আর ২ দিন বাকি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখতে ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপন করবে সরকার। এ উপলক্ষে বছরজুড়ে কর্মসূচি গ্রহণ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ নিজামউদ্দিন স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বছরব্যাপী গৃহীত কর্মসূচি তুলে ধরা হয়। বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবারের শহীদদের রূহের মাগফিরাত কামনা করে ১৭ মার্চ বাদ যোহর বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদসহ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৬৪টি বিভাগীয়/জেলা কার্যালয়, ৫০৮ উপজেলা/জোন, মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা প্রকল্পের ৭৩ হাজার ৭৬৮ কেন্দ্র, ৫৫০ মডেল রিসোর্স সেন্টার, ১৫০০ সাধারণ রিসোর্স সেন্টার, ৫৫৫ মডেল লাইব্রেরি, ১০১০ দারুল আরকাম মাদ্রাসা, ৫০ ইসলামিক মিশন কেন্দ্র, ৪৬৫ মক্তব ও ৭টি ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমিসহ মোট ৭৮ হাজার ৪৭৮ স্থানে বিশেষ দোয়া হবে।

বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদদের রূহের মাগফিরাত কামনায় ১৭ মার্চ বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ১০০ কুরআনে হাফেজের মাধ্যমে ১০০ কুরআন খতম করা হবে। এছাড়া চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ ও জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ এবং রাজশাহীর হেতেম খাঁ মসজিদে কুরআন খতম ও বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। মুসলিম উম্মাহর ভ্রাতৃত্ব প্রতিষ্ঠা ও সব ধর্মের অধিকার সুরক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান শিরোনামে আটটি বিভাগীয়সহ মোট ৯টি আন্তর্জাতিক সেমিনার দেশি-বিদেশি খ্যাতিমান ইসলামী স্কলারদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হবে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সুসংহত করার প্রত্যয়ে দেশের প্রতিটি বিভাগে আন্তঃধর্মীয় সংলাপের আয়োজন করা হবে।

বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে আট হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে নির্মাণাধীন ৫৬০ মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের মধ্যে মুজিববর্ষে ১০০ মডেল মসজিদের নির্মাণ কাজ সুসম্পন্ন করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। মুজিববর্ষে পবিত্র কুরআন ও হাদিসের ওপর গবেষণাধর্মী ১০০ মৌলিক বই প্রকাশ করা হবে। ‘ইসলামের প্রচার ও প্রসারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান’ এর ওপর বাংলা, ইংরেজি ও আরবি ভাষায় বুকলেট ও ডকুমেন্টারি নির্মাণ করা হবে।

মুজিববর্ষে বায়তুল মোকাররম মসজিদকে দৃষ্টিনন্দন, আধুনিকায়ন ও সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে প্রকল্প গ্রহণ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে ভিত্তিপ্রস্তরকৃত বায়তুল মোকাররম মসজিদের মিনারের অসমাপ্ত কাজ সম্পন্নের উদ্যোগ নেয়া হবে। বায়তুল মোকাররমের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিসহ ৬৪ জেলা লাইব্রেরিতে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ স্থাপন করা হবে। মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ছয় লাখ কপি কুরআনুল করীম বিনামূল্যে শিশু-কিশোরদের মাঝে বিতরণ করা হবে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বায়তুল মোকাররম কার্যালয় ও ৫০টি ইসলামিক মিশনে ১৭-৩১ মার্চ বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হবে। বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ আঙিনা এবং ৬৪ বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়ে মাসব্যাপী বিশেষ ইসলামী বইমেলার আয়োজন করা হবে। বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর আকর্ষণীয় স্মারকগ্রন্থ প্রকাশ করা হবে। এছাড়া জাতীয় শিশু দিবস ও জাতীয় শোক দিবসে জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নিয়মিত প্রকাশনা ‘মাসিক অগ্রপথিক’ ও ‘মাসিক সবুজপাতা’ পত্রিকার বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করা হবে।

বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত এবং বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৬৪ বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, ৫০টি ইসলামিক মিশন কেন্দ্র ও সাতটি ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমিতে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে শিশু-কিশোর সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে বিজয়ীদের নিয়ে জাতীয় পর্যায়ে শিশু-কিশোর সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে।

‘পরিচ্ছন্ন কর্মপরিবেশ, পরিচ্ছন্ন সেবা’ শিরোনামে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৬৪ বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, ৫০টি ইসলামিক মিশন কেন্দ্র ও সাতটি ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমির অফিস ও অফিসের চারপাশ পরিচ্ছন্ন করা হবে। ভিডিও কনফারেন্সে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আ. গাফফার খান, জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন বাস্তবায়ন কমিটির কার্যালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ এমদাদ উল্লাহ মিয়ান এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

আগামী ১৭ মার্চ স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকী। এ উপলক্ষে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত বছরব্যাপী ‘মুজিববর্ষ’ পালন করবে সরকার। দলীয়ভাবে আওয়ামী লীগও মুজিববর্ষ পালন করবে।