• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১ মহররম ১৪৪২, ০৩ আশ্বিন ১৪২৭

স্বাস্থ্য অধিদফতরের বুলেটিনে

করোনায় রংপুরে একজনের মৃত্যু নিয়ে বিভ্রান্তি

রংপুর মেডিকেল হাসপাতালের কেউ জানে না

সংবাদ :
  • লিয়াকত আলী বাদল, রংপুর

| ঢাকা , সোমবার, ০৪ মে ২০২০

ঢাকায় কোভিড-১৯ সম্পর্কিত স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত বুলেটিনে গতকাল ভিডিও কনফারেন্সে করনায় আক্রান্ত রংপুরে একজনের মৃত্যুর খবর প্রকাশ করা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। মৃত্যুর বিষয়টি সম্পর্কে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক, কলেজের অধ্যাক্ষ সিভিল সার্জন কেওই জানেনা রংপুরে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কথা বরং তারা হতবাক হয়েছেন। স্বাস্থ্য অধিদফতর কোথায় পেল খবরটি এ নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে চলছে নানা জল্পনা কল্পনা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গতকাল স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা করোনা সংক্রান্ত ভিডিও কনফারেন্সে বলেছেন, গতকাল করোনায় দু’জন মারা গেছেন। এদের একজনের বাড়ি রংপুরে তার বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে অপরজনের বাড়ি নারায়ণগঞ্জে।

ওই ভিডিও কনফারেন্সের রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করে দেশের সব বেসরকারি টিভি চ্যানেল, অনলাইন মিডিয়াসহ জাতীয় দৈনিকে অনলাইন এডিশনে মৃত্যুর খবরটি গুরত্ব দিয়ে প্রকাশিত হয়েছে। এ খবর দেখে রংপুরের বিভিন্ন স্তরের মানুষ এখানে কর্মরত গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে ফোন করে জানতে চেয়েছেন রংপুরে যে মারা গেছে তার নাম ও বাড়ি কোথায়? বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়।

সার্বিক বিষয়ে জানতে রংপুরের সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, রংপুরে করোনায় আক্রান্ত কেউ মারা গেছে বলে তার জানা নেই। রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ও পিসিআর ল্যাবের প্রধান অধ্যাপক ডা. নুরন্নবী লাইজু বলেন, রংপুরে করোনার কোন রোগী মারা গেছে বলে আমার জানা নেই।

এদিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. ফরিদুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, হাসপাতালে কোন রোগী করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার খবর নেই। একটি কিশোর মারা গেছে তাও বেশ কয়েকদিন আগে।

পরে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক ডা. আমিন আহাম্মদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, গত ২৫ এপ্রিল গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রিয়াদ নামে এক কিশোর অসুস্থ অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। তখন তার শরীরে করোনা শনাক্ত হয়নি। তার পরেও নমুনা সংগ্রহ করে রাখা হয়েছিলো। দু’দিন পর নমুনা পরীক্ষা করে কোভিট ১৯ পজিটিভ প্রতিবেদন এসেছে। কিন্তু ২৫ তারিখেই তাকে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে দাফন করেছে তার স্বজনরা, কিন্তু কেন এতদিন তাকে মৃত্যু দেখানো হলো তার কোন সদুত্তর তিনি দিতে পারেন নি।

এদিকে ৮ দিন আগে মারা যাওয়া কিশোরকে কেন গতকাল মৃত্যু দেখানো হলো তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।