• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ সফর ১৪৪২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

করোনায় যোদ্ধা শিশু রুদ্রজিৎ

সংবাদ :
  • মো. মানিক মিয়া, আখাউড়া

| ঢাকা , রোববার, ০৩ মে ২০২০

প্রথম শ্রেণী পড়ুয়া সাত বছর বয়সি রুদ্রজিৎ পাল। গতকাল সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সড়ক ঘুরে ঘুরে মাইকিং করে মানুষকে ঘরে থাকার আহ্বান জানায় এই শিশু। পাশাপাশি নিজের হাতে লেখা সচেতনতামূলক লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ করে ওই শিশু।

এদিকে এমন ছোট্ট শিশুকে এমনভাবে করোনা প্রতিরোধ প্রচরণায় দেখতে পেয়ে প্রশংসায় সরব হয়েছেন এলাকার মানুষ। জনপ্রতিনিধি, পদস্থ সরকারি কর্মকর্তা থেকে শুরু করে সবাই শিশুর এমন উদ্যোগের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন।

রুদ্রজিৎ পাল ‘দৈনিক কালের কন্ঠ’-এর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি বিশ্বজিৎ পাল বাবু’র একমাত্র ছেলে। পড়াশোনা করে আখাউড়া পৌর এলাকার মেধা বিকাশ প্রি ক্যাডেট স্কুলে। তার বাড়ি পৌর এলাকার রাধানগরে।

রুদ্রজিৎ প্রায় তিন ঘণ্টা করা মাইকিংয়ে বলেছে, ‘শুনুন শুনুন শুনুন। একটি ঘোষণা শুনুন। আপনারা স্বাস্থ্য সচেতন থাকবেন। অকারণে ঘর থেকে বের হবেন না। ঘর থেকে বের হলে মুখে পড়ুন মাস্ক, হাতে পড়ুন গ্লাভস। দূরত্ব বজায় রাখবেন। নিয়মিত হাত ধোবেন। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন’। রুদ্রজিতের কাকা প্রসেনজিৎ পাল সান্টু ও সুরজিত পাল অর্ণব এবং ধারাভাষ্যকার হিসেবে পরিচিত খোরশেদ আলম বাবু প্রচারণা কার্যক্রমের সময় সঙ্গে ছিলেন। পুরো সময় জুড়েই রুদ্র সাবলীল ছিলো বলে তারা জানায়।

শিশু রুদ্রজিতের এই উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিনা আক্তার রেইনা। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘এটি একটি ভালো উদাহরণ হয়েছে আখাউড়াবাসীর জন্য। আশা করি, এই শিশুর আহ্বানে সারা দিয়ে মানুষ সচেতন হবে।’

আখাউড়া পৌরসভার মেয়র বলেন, ‘শিশু রুদ্রজিতের এই কার্যক্রম আমাদের বিবেককে নাড়া দিবে জাগ্রত করবে। আশা করব ওই শিশুর কাছ থেকে শিক্ষা নিয়ে আমরা সরকারি নির্দেশনা মেনে চলব। সত্যিই শিশুর উদ্যোগে প্রশংসার দাবিদার।’

আখাউড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আবুল কাশেম ভূঁইয়া ও আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মো. জয়নাল আবেদীন লিফলেট নেয়ার সময় এ কার্যক্রমের প্রশংসা করেন। লিফলেট পেয়ে রুদ্রজিতের হাতে শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন জেলা পরিষদ সদস্য মো. আতাউর রহমান নাজিম। এছাড়া রুদ্রজিৎ আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল হালিম হেলাল, কৃষি অফিসার শাহানা বেগম, উপজেলা খাদ্য নিয়মন্ত্রক সজীব কাউছার, যুবলীগ নেতা আবদুল মমিন বাবুল, মো. মনির খান, আবু কাউছার ভূঁইয়া, মনিয়ন্দ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. কামাল উদ্দিন, দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জালাল উদ্দিনসহ নেতাদের মাঝে লিফলেট বিতরণ করে প্রশংসায় ভাসে। পুলিশ পরিদর্শক আরিফুল আমীনের স্ত্রী সালেহা নাসরিন আরিফ, আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. শাহাবুদ্দিন বেগ শাপলু, সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন নয়নসহ স্থানীয় সাংবাদিকরা বিভিন্ন স্থানে রুদ্রকে দাঁড় করিয়ে ভিডিও করেন ও ছবি তুলেন।

মেধা বিকাশ প্রি ক্যাডেট স্কুলের পরিচালক মো. জহিরুল ইসলাম সাগরও বেশ খুশি হয়েছেন বলে জানান। তিনি বলেছেন, ‘করোনা পরিস্থিতিতে এটি আলোচিত ঘটনার মধ্যে একটি।’ তার পড়াশোনা আর মেধার বিষয় নিয়েও ওই শিক্ষক প্রশংসা করেছেন।

রুদ্রজিতের বাবা বিশ্বজিৎ পাল বাবু জানান, টিভি দেখে সে স্বাস্থ্য সচেতনতার ডায়লাগ মুখস্থ করে প্রায়ই বাসায় বলত। পরে মুখস্ত করা ডায়ালগ কাগজে লিখল। সঙ্গে নিজের পরিচিতির কথা যোগ করে দেয়া হয়। লিফলেটের পাশাপাশি মাস্ক বিতরণের আবদার করলে সেটিও দেয়া হয়।