• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১ মহররম ১৪৪২, ০৩ আশ্বিন ১৪২৭

লকডাউনে একমাসে

করোনার চেয়ে সড়কে ঝরলো বেশি প্রাণ

দুর্ঘটনা ২০১টি নিহত ২১১ আহত ২২৭

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , সোমবার, ০৪ মে ২০২০

সারাদেশ লকডাউনের মধ্যে গত ১ মাসে ২০১ সড়ক দুর্ঘটনায় ২১১ নিহত, ২২৭ আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে যাত্রীকল্যাণ সমিতি। সাধারণ ছুটি বা লকডাউন কোন কিছুই থামাতে পারছে না সড়ক দুর্ঘটনা। গত ২৬ মার্চ থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশব্যাপী পরিবহন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হলেও সড়ক দুর্ঘটনা থেমে থাকেনি। এ সময় নৌপথে ৮টি দুর্ঘটনায় ৮ জন নিহত, ২ জন আহত এবং ২ জন নিখোঁজ হয়েছে বলে জানিয়েছে সংগঠনটি। গতকাল এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায় সংগঠনটি।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, এ মাসে সড়কে দুর্ঘটনায় আক্রান্ত ৬৯ জন পথচারী, ৬৭ জন চালক, ৩২ জন পরিবহন শ্রমিক, ১৩ জন শিক্ষার্থী, ৩ জন শিক্ষক, ৪৬ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, ২৭ জন নারী, ২১ জন শিশু, ১ জন সাংবাদিক এবং ১ জন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীর পরিচয় সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে। এরমধ্যে নিহত হয়েছে ৫০ জন চালক, ৬৪ জন পথচারী, ২২ জন নারী, ১২ জন ছাত্রছাত্রী, ২০ জন পরিবহন শ্রমিক, ১৮ জন শিশু, ১ জন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, ২ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, ৩ জন শিক্ষক ও ১ জন সাংবাদিক ছিল।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, সর্বোচ্চ ৯৭টি দুর্ঘটনা ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানে, ৬৩টি দুর্ঘটনা মোটরসাইকেলে, ২৯টি ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক, ২৮টি নসিমন ও করিমন, ২২টি সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ১৭টি প্রাইভেট কার ও ১টি বাস এসব দুর্ঘটনায় জড়িত ছিল। এ মাসে সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয় ২৩ এপ্রিল এইদিনে ১৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত ৫ জন আহত হয়। সবচেয়ে কম সড়ক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয় ৯ এপ্রিল ১টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১ জন নিহত হয়।

এ বিষয়ে সংগঠনের মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী সংবাদকে বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা মনিটরিং সেলের পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। দেশের সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে এই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। এই দুর্ঘটনার প্রধান কারণ হয়েছে বেপরোয়া গতি। ফাঁকা রাস্তায় ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানের গতির কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনার ৯৭টি ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানে সংর্ঘষে সংগঠিত হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে আছে মোটরসাইকের। লকডাউন না মেনে বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়কে বেপরোয়া গতি মোটরসাইকেল চালানোর কারণে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে।