• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ০৭ জুন ২০২০, ২৪ জৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

বয়স্ক, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ

আক্রান্তদের সমাগম এড়িয়ে চলার পরামর্শ

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , বুধবার, ১১ মার্চ ২০২০

করোনাভাইরাস থেকে রক্ষায় বয়স্ক, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, অ্যাজমা, কিডনি সমস্যা ও ক্যানসার রোগীদের জনসমাগম ও ভিড় এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা। দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৩ জন শনাক্ত হওয়ার পর দেশবাসীর মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে।

আইইডিসিআরের পরিচালক প্রফেসর ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানিয়েছেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন করোনাভাইরাস ( কোভিড-১৯) আক্রান্ত ৩ জনের অবস্থা স্থিতিশীল আছে। এদের সংস্পর্শে আশা ব্যক্তিরাও কোয়ারেন্টাইনে ভালো আছেন। নতুন কেউ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হননি। সন্দেহভাজন আরও ৮ জনকে গতকাল কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে। এ নিয়ে কোয়ারেন্টাইনে আছে ৫৬ জন।

করোনাভাইরাস বিশেষজ্ঞদের মতে, পৃথিবীর দুই-তৃতীয়াংশ দেশে এ সংক্রমণ ঘটছে। তাই যে দেশে আছেন যেখানে আছেন সেখানেই অবস্থান করাই উত্তম।

কোভিড-১৯ আক্রান্ত সন্দেহে থাকা ব্যক্তিদের জ্ঞাতব্য : যে সব দেশে কোভিড-১৯এর স্থানীয় সংক্রমণ ঘটেছে। তার মধ্যে গতকাল পর্যন্ত আক্রান্ত ১০২টি দেশের মধ্যে ৬০টি দেশ- চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ভিয়েতনাম, ফিলিপিনস, নিউজিল্যান্ড, কম্বোডিয়া, ইটালি, জার্মানি, ফ্রান্স, স্পেন, সুইজারল্যান্ড, যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, সুইডেন, নরওয়ে, অস্ট্রিয়া, গ্রিস, আইসল্যান্ড, ডেনমার্ক, স্যান মেরিনো, চেকিয়া, ইসরায়েল, পর্তুগাল, ফিনল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, রোমানিয়া, সে্লাভেনিয়া, ক্রোয়েশিয়া, হাঙ্গেরি, বেলারুশ, সে্লাভাকিয়া, বসনিয়া ও হারজেগোভিনা, বুলগেরিয়া, থাইল্যান্ড, ভারত, ইন্দোনেসিয়া, মালদ্বীপ, ইরান, বাহরাইন, ইরাক, মিসর, সংযুক্ত আরব আমিরাত, লেবানন, প্যালেস্টাইন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রাজিল, ইকুয়েডর, চিলি, কোস্টারিকা, পেরু, আলজেরিয়া, ক্যামেরুন ও ডায়মন্ড প্রিন্সেস জাহাজ সে সব দেশ থেকে যে সব যাত্রী আসবেন (দেশি-বিদেশি) যে কোন নাগরিক তাদের স্বেচ্ছা/গৃহ কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। তাদের কারও মধ্যে যদি কোভিড-১৯-এর লক্ষণ দেখা যায় তবে অন্য কোথাও না যেয়ে প্রথমেই আইইডিসিআর-এর হটলাইনে যোগাযোগ করার অনুরোধ করা হলো।

পৃথিবীর দুই-তৃতীয়াংশ দেশে স্থানীয় সংক্রমণ ঘটছে। তাই যে দেশে আছেন যেখানে আছেন সেখানেই অবস্থান করাই উত্তম। কারণ আরোহন, ট্রানজিট ও অবতরণের বিমানবন্দর টার্মিনাল এবং বিমানের ভেতরে যে কোন যাত্রী, ক্রু কোভিড-১৯ সংক্রমিত যাত্রী, ক্রু দ্বারা সংক্রমিত হতে পারেন। সংক্রমিত যাত্রী/ ক্রু যে দেশে অবতরণ করবেন সে দেশে কোভিড-১৯ সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই অত্যাবশ্যকীয় নয় এমন আন্তর্জাতিক ভ্রমণকে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের স্বাস্থ্য পরিস্থিতি : সিঙ্গাপুর, আরব আমিরাত, ইতালি ছাড়া অন্য কোন দেশে এখনও পর্যন্ত কোন প্রবাসী বাংলাদেশি কোভিড-১৯ আক্রান্ত হননি। সিঙ্গাপুরে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন বাংলাদেশি রোগীর অবস্থার উন্নতি হয়নি, আরেকজন প্রবাসী বাংলাদেশিও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। দিল্লিতে উহান থেকে আগত ২৩ জন বাংলাদেশি নাগরিক দিল্লি শহর থেকে ৪০ মাইল দূরে একটি কোয়ারেন্টাইনে আছেন। আমরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ দূতাবাসের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছি।

গতকাল পর্যন্ত ইতালিতে মোট ৭৯৮৫ জন ব্যক্তি ল্যাবরেটরি পরীক্ষায় কোভিড-১৯ আক্রান্ত বলে নিশ্চিত হয়েছেন, সেরে ওঠেছেন ৭২৪ জন, মৃত্যুবরণ করেছেন ৪৬৩ জন। কোভিড-১৯ শনাক্ত

ব্যক্তিদের মধ্যে ২৯৩৬ জন গৃহে আইসোলেশনে, উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪৩১৬ জন, ৭৩৩ জন ইনটেনসিভ কেয়ারে আছেন।

হটলাইনের সংখ্যা বেড়ে এখন ১৩টি : বাংলাদেশে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতি ১ থেকে ৩ এ উন্নীত হওয়ায় হটলাইনের সংখ্যা ৪টি থেকে বাড়িয়ে ১৩টি করা হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের স্বাস্থ্য বাতায়নের হটলাইন নম্বর : ১৬২৬৩ আইইডিসিআর-এর হটলাইনের নম্বর : ০১৪০১১৮৪৫৫১, ০১৪০১১৮৪৫৫৪, ০১৪০১১৮৪৫৫৫, ০১৪০১১৮৪৫৫৬, ০১৪০১১৮৪৫৫৯, ০১৪০১১৮৪৫৬০, ০১৪০১১৮৪৫৬৩, ০১৪০১১৮৪৫৬৮, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯৩৭১১০০১১

বাংলাদেশ পরিস্থিতি : স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালনায় আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, সমুদ্র বন্দর, স্থলবন্দরগুলোতে বিদেশ থেকে আসা সব যাত্রীর তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে। প্রায় ৫৪০৭১৯ জনের স্বাস্থ্য স্ক্রিনিং করা হয়েছে।

আইইডিসিআর হটলাইনে প্রতিদিন কোভিড-১৯ বিষয়ে মানুষের জিজ্ঞাসার জবাব দেয়া হয়। ভাইরোলজি ল্যাবরেটরিতে কোভিড-১৯ আক্রান্ত সন্দেহে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। গতকাল পর্যন্ত আইইডিসিআরে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত সেবাগ্রহীতার সংখ্যা ২৪৯ জন। তার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নিয়েছে ২৪ জন। আর করোনাভাইরাস সন্দেহে পরীক্ষা করা মোট নমুনার সংখ্যা-১৪২। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এমন সন্দেহে বিভিন্ন হাসপাতালে অন্তত ল্যাবরেটরি পরীক্ষা পর্যন্ত আইসোলেশনে আছে এবং বিদেশে আক্রান্ত দেশ থেকে আগত যাত্রী যারা কোয়ারেন্টাইনে আছে তাদের সংখ্যা গত ২৪ ঘণ্টায় ৮ জন। এ নিয়ে মোট সংখ্যা ৫৬ জন। করোনাভাইরাস সম্পর্কে কোন জিজ্ঞাস্য থাকলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের স্বাস্থ্য বাতায়নে ১৬২৬৩ এবং আইইডিসিআর-এর হটলাইন নম্বরে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

সংক্রমণ প্রতিরোধে করণীয় : নিয়মিত সাবান ও পানি দিয়ে দুই হাত ধোবেন (অন্তত ২০ সেকেন্ড যাবৎ)। অপরিষ্কার হাতে চোখ, নাক ও মুখ স্পর্শ করবেন না। ইতোমধ্যে আক্রান্ত এমন ব্যক্তিদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন। কাশি শিষ্টাচার মেনে চলুন হাঁচি-কাশির সময় বাহু, টিস্যু, কাপড় দিয়ে নাক-মুখ ঢেকে রাখুন। অসুস্থ হলে ঘরে থাকুন, বাইরে যাওয়া অত্যাবশ্যক হলে নাক-মুখ ঢাকার জন্য মাস্ক ব্যবহার করুন। কারও সঙ্গে হাত মেলানো (হ্যান্ডশেক), কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন। জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত বিদেশ ভ্রমণ করা থেকে বিরত থাকুন এবং এ সময়ে অন্য দেশ থেকে প্রয়োজন ব্যতীত বাংলাদেশ ভ্রমণে নিরুৎসাহিত করুন। অত্যাবশ্যকীয় ভ্রমণে সাবধানতা অবলম্বন করুন। অত্যাবশকীয় নয় এমন সব জাতীয়-আন্তর্জাতিক সভা-সমাবেশ-সম্মেলন আয়োজন না করাই ভালো।