• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১

নুসরাত হত্যা

হাজার মোমবাতি প্রজ্বলনে ফেনীতে প্রতিবাদ

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ফেনী

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০১৯

ফেনীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির নির্মম হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে ও খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে হাজার মোমবাতি প্রজ্বলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় শান্তি-সম্প্রীতির প্রতীকে আকাশে ওড়ে ছয়শ’ ফানুস। পহেলা বৈশাখ রোববার সন্ধ্যায় ফেনী পাইলট হাইস্কুল মাঠে আয়োজিত এ মোমবাতি প্রজ্বলন অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন ফেনী জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজামান।

বাংলা বর্ষবরণ উপলক্ষে ফেনীর সবচেয়ে বড় উৎসব ‘ফানুসিয়ানা’ তৃতীয়বারের এ আয়োজন ছিল মানুষের জীবনে শান্তি ফেরার স্বপ্নে। এর আগে এ হত্যাকান্ডের শোক প্রকাশে কালো ব্যাচ ধারণ করে উৎসবে আসা কয়েক হাজার মানুষ। উৎসবের প্রবেশমুখে স্থাপন করা হয় প্রতিবাদী মশাল। আকাশে ছিল ১৫ মিনিটের আতশবাজি প্রদর্শনী। ফেনী সরকারি কলেজের মূল ভবন, ফেনী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মূল ভবন ও সাবেক অ্যাসেম্বলি হলে করা হয় আলোকসজ্জা। অনুষ্ঠান সফল করতে প্রায় ১০০ সংগঠকের বিশাল টিম দায়িত্ব ভাগ করে কাজ করে।

ফানুসিয়ানা উদযাপনের সদস্য সাংবাদিক বখতেয়ার ইসলাম মুন্না বলেন, ‘ফানুসিয়ানা’ ফেনীর সবচেয়ে বড় উৎসব। ফেনীর হাজারো মানুষ ফানুস উড়িয়ে এ উৎসব উদযাপন করেন। এর মাধ্যমে সম্প্রীতির অনন্য এক বন্ধন তৈরি হয়। তিনি বলেন, নুসরাত জাহান রাফির খুনের প্রতিবাদে এবারের উৎসবটি আমরা মোমবাতি প্রজ্বলনের মাধ্যমে শুরু করেছি। কালো ব্যাচ ধারণ করে হাজারো মানুষ এক সঙ্গে এ হত্যাকান্ডের আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছে। আমরা চাই, এখান থেকেই উঠুক বড় প্রতিবাদ।

আয়োজক কমিটির সদস্য সাংবাদিক আসাদুজ্জামান দারা বলেন, আমরা চাইছি ফেনীর একটি নিজস্ব উৎসব প্রতিষ্ঠা করতে এবং এটিকে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিতে। একটি উৎসব ব্র্যান্ডিং করতে পারলে জাতীয়ভাবে আমাদের জেলার ব্যাপারে অতীতে যে নেতিবাচক মনোভাব ছিল, এর কিছুটা হলেও পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব হবে। দেশের অনেক জেলায় ভিন্ন উৎসব রয়েছে। পাহাড়ে আছে বিজু-বৈসাবি, কঠিন চিবরদান, সাংগ্রাই, চট্টগ্রামে জব্বারের বলীখেলা, নড়াইলে সুলতান উৎসব, কুষ্টিয়ায় লালন উৎসব, যশোরে মাইকেল মধুসূদন উৎসব ইত্যাদি। এসব উৎসবে দেশের বাইরে থেকেও অনেকে এসে অংশ নিয়ে থাকেন। কিন্তু আমাদের ওই রকম কোনো উৎসব-অনুষ্ঠান নেই। তাই এমন ভাবনা থেকেই ফানুসিয়ানার আয়োজন। সবার অংশগ্রহণে ফানুসিয়ানা ধীরে ধীরে ফেনীবাসীর উৎসবে পরিণত হচ্ছে।