• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৬ ফল্গুন ১৪২৬, ২৪ জমাদিউল সানি ১৪৪১

মঞ্চে এল প্রাঙ্গণেমোর’র ‘কৃষ্ণচূড়া দিন’

    সংবাদ :
  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • | ঢাকা , শনিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

নূনা আফরোজের রচনায় ও নির্দেশনায় মঞ্চে এল প্রাঙ্গনেমোর এর নতুন প্রযোজনা ‘কৃষ্ণচূড়া দিন’। প্রাঙ্গণেমোর নাট্যদলের ১৪তম প্রযোজনা এই নাটকের উদ্বোধনী মঞ্চায়ন ১৩ ফেব্রুয়ারি মহিলা সমিতির ড. নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে।

নাটকের গল্পে দোলা এবং ভূমি দুই বান্ধবী। ক্লাস ফাইভ থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত ওরা একসঙ্গে পড়াশোনা করেছেন। সব সময় একসঙ্গে চলেছেন। একজন কলেজে না গেলে সেদিন আর অন্যজন ক্লাস করতেন না, সোজা গিয়ে হাজির হতেন বান্ধবীর বাসায়। যে কোন কিছু দুজন-দুজনকে শেয়ার না করা পর্যন্ত স্বস্তি নেই তাদের। ভূমি পছন্দ করতেন কৃষ্ণচূড়া-ফুল আর দোলা পছন্দ করতেন রাধাচূড়া ফুল। তাই কৃষ্ণচূড়া দিন এলে তারা ঘণ্টা ধরে রিক্সা ঠিক করে সারা শহর ঘুরে বেড়াতেন। কৃষ্ণচূড়া দেখলেই ভূমি দোলাকে দেখাতো আবার দোলা রাধাচূড়া দেখলেই ভূমিকে দেখাতেন। তাদের ভেতর এমন টেলিপ্যাথি কাজ করতো যে একজন কী ভাবছেন তা অনায়াসে বলে ফেলতেন আরেকজন। দুজন দুজনকে না দেখে একদিনও থাকতে পারতেন না। এভাবেই চলে যাচ্ছিল জীবন। হঠাৎ দোলার বিয়ে হয়ে যাওয়াতে ভূমি একা হয়ে যায়। শুরু হয় নানা রকমের মনস্তাত্ত্বিক সমস্যা। ১ ঘণ্টা ৫ মিনিটের এই নাটকে দেখা যায়, দোলা ও নেহালের নতুন সংসারে কিছুদিনের অতিথি হয়ে আসেন দোলার বান্ধবী ভূমি। কিন্তু দোলা-নেহালের মধুর দাম্পত্য জীবনে কাঁটা হয়ে দাঁড়ায় ভূমির আবেগ-প্রেম ও হঠকারিতা। ফলে বিচ্ছেদের পথে হাঁটেন নেহাল-দোলা দম্পতি। কিন্তু প্রেমের মধুর সম্পর্ক কেন নাটকীয় মোড় নেয়, কী হয় তার পরিণতি, তা দেখার জন্য দর্শকদের অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করতে হয় শেষ দৃশ্য পর্যন্ত। ‘কৃষ্ণচূড়া দিন’ নাটকে অভিনয় করেন নূনা আফরোজ, চৈতালী হালদার, তৌহিদ বিপ্লব, সুজন গুপ্ত। গতকাল ১৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় আবারও একই মিলনায়তনে নাটকটির দ্বিতীয় মঞ্চায়ন হয়েছে।