• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৮ি জিলহজ ১৪৪১, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

৩ জেলায় করোনা শনাক্ত ৭৭

| ঢাকা , শুক্রবার, ৩১ জুলাই ২০২০

নোয়াখালীতে ৩৩

প্রতিনিধি, বেগমগঞ্জ (নোয়াখালী)

নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩৮টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে নতুন করে আরও ৩৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। জেলায় মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩০৮৯ জন, গত ২৪ ঘণ্টায় কবিরহাটে ১ জনসহ জেলায় মোট মৃত্যু-৬৩ জন, এবং গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৭ জনসহ সুস্থ হয়েছেন ২২৮৫ জন। নতুন করে আক্রান্তের মধ্যে সদরে-৮, বেগমগঞ্জে ২, কোম্পানীগঞ্জে-১২ জন, কবিরহাটে-৫ জন, সোনাইমুড়ীতে-২, ও সুবর্ণচরে- ৪ জন। নোয়াখালীতে সবচেয়ে বেশি করোনা ঝুঁকিতে রয়েছে জেলার প্রধান বাণিজ্য কেন্দ্র চৌমুহনী শহরসহ বেগমগঞ্জ উপজেলা এবং জেলা শহরসহ সদর উপজেলা। সদরে সর্বোচ্চ ৯০৫ জন এবং বেগমগঞ্জ উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৭৬৫ জন। বেগমগঞ্জে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে সর্বোচ্চ ২৫ জন।

কিশোরগঞ্জে ২৩

জেলা বার্তা পরিবেশক, কিশোরগঞ্জ

কিশোরগঞ্জে আরও ২৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন আরো একজন। সুস্থ হয়েছেন ১৯ জন। সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান জানিয়েছেন, বুধবার রাতে পাওয়া ৯৬টি নমুনার পরীক্ষার ফলাফলে দেখা গেছে, সদর উপজেলায় ১৪ জন, পাকুন্দিয়ায় ৫ জন, করিমগঞ্জ ও কটিয়াদীতে ২ জন করে আক্রান্ত হয়েছেন। বুধবার সুস্থ হয়েছেন সদর উপজেলায় ১১ জন, বাজিতপুরে ৪ জন, পাকুন্দিয়ায় ২ জন, তাড়াইল ও কটিয়াদীতে একজন করে। কুলিয়ারচরে একজন মারা গেছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট ৩৬ জন মারা গেলেন। বুধবার পর্যন্ত জেলায় আক্রান্ত হয়েছিলেন ১,৯৯৫ জন, মারা গেছেন ৩৬ জন, আর সুস্থ হয়েছেন ১,৭৪৫ জন। বুধবার জেলায় করোনায় চিকিৎসাধীন ছিলেন ২১৪ জন।

খাগড়াছড়িতে ২১

প্রতিনিধি, খাগড়াছড়ি

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলাতে গত ২৪ঘণ্টায় নতুন করে ২১জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। পূর্বের মোট আক্রান্ত সংখ্যা ছিলো ৪শত ৯৪জন। এ নিয়ে জেলায় বেড়ে তা মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৫শত ১৫ জনে। তার মধ্যে ৩শত ১১ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বুধবার (২৯ শে জুলাই) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন ডা. নুপুর কান্তি দাশ। তিনি জানান, এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ৫৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে। তারমধ্যে ফলাফল রিপোর্ট এসেছে এসেছে ৩ হাজার ৩০ জনের। প্রতিদিন বেড়ে এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৫১৫ জনে। তিনি আরও জানান, আক্রান্তদের মধ্যে বেশিরভাগই পুলিশ ও ডাক্তারসহ স্বাস্থ্যকর্মী। তার মধ্যে পুলিশ সদস্য ১১৮ জন, ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মী ২৫ জন।