• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

মুক্তেশ্বরী নদীতে বাঁশের সাঁকো চরম দুর্ভোগে ৫ গ্রামের মানুষ

সংবাদ :
  • কাইয়ুম হাসান শিমুল, মণিরামপুর (যশোর)

| ঢাকা , শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০

মণিরামপুরের মুক্তেশ্বরী নদী ওপর কোন সেতু নির্র্মাণ না হওয়ায় ৫ গ্রামের মানুষের ভরসা বাঁশের সাঁকো। ফলে প্রতিনিয়ত ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে এসব গ্রামের মানুষদের। বিশেষ করে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীদের ও কৃষকদের। উৎপাদিত ফসল বাজারজাতকরণে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। অনেকে বাধ্য হয়ে নদীর ভেঁড়ির ওপর দিয়ে পায়ে হাঁটা পথে কয়েক কিলোমিটার ঘুরে মনিরামপুর উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করছেন। কিন্তু বর্ষা মৌসুমে ভেঁড়ি কর্দমাক্ত হওয়ায় মোটরসাইকেল, ভ্যান, বাইসাইকেলতো চালানো দূরের কথা পায়ে হেঁটে চলাচল করতেও দুর্ভোগ ও ভোগান্তিতে পড়তে হয়। ভোগান্তির শিকার উপজেলার ঢাকুরিয়া ইউনিয়নের নাউলী, গাবুখালি, প্রতাপকাটি, সুবলকাটি, কাটাখালি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ দ্রুত একটি সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়েছে।

এ বিষয়ে নাউলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লিংকন বিশ্বাস বলেন, এভাবে প্রতিদিন আমরা ভয়ে ভয়ে সাঁকো পার হয়ে স্কুলে আসি। পা পিছলে গেলে পা ভেঙ্গে যাবে। পানিতে পড়ে মারাও যেতে পারি। তবুও কেউ আমাদের জন্য ব্রিজ তৈরি করে দেয় না।

নাউলী গ্রামের কৃষক প্রদীপ মল্লিক বলেন, ক্ষেতের ফসল হাটে (বাজারে) বিক্রি করতি গেলি মেলা (কয়েক কিলোমিটার) ঘুরে যাতি হয়। এই জন্য ভাড়াও বাইড়ে যায়।

স্থানীয় ঢাকুরিয়া ইউপি সদস্য গৌর চন্দ্র দে বলেন, সেতু নির্মাণের জন্য ২০১৭ সাল থেকে মাপামাপি হচ্ছে। এখনও দৃশ্যত কিছুই হয়নি। উপজেলা প্রকৌশলী মো. রবিউল ইসলাম বলেন, ব্রিজ নির্মাণে প্রকল্প প্রস্তাবনাকারে এলজিইডি সদর দফতরে পাঠানো হয়েছে।