• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

মহেশপুরে ২২ ভাটার ১৭টিই অবৈধ : নীরব প্রশাসন !

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, মহেশপুর (ঝিনাইদহ)

| ঢাকা , শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) : ইটভাটায় পোড়ানোর জন্য স্তূপ করে রাখা কাঠ -সংবাদ

সরকারি অনুমতি ছাড়ায় ঝিনাইদহের মহেশপুরে চালানো হচ্ছে ইটভাটা। উপজেলার ২২টি ভাটার মধ্যে সরকারি লাইসেন্স আছে মাত্র ৫টির। বাকি ১৭টির কোন অনুমোদন না থাকলে সবগুলোই চলছে অবাধে। আর এসব ইটভাটার অধিকাংশই কৃষি জমির উপরিভাগ কেটে ইট তৈরির কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে। একইসঙ্গে উজাড় হচ্ছে গাছ। বিশেষ করে ইটভাটার কারণে বিলুপ্ত হচ্ছে খেজুর গাছ। অর্ধেকের বেশি ভাটায় টিনের চিমনি ব্যবহার করা হচ্ছে। ভাটার মালিকরা সরকারি আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রশাসনের নাকের ডোগায় ইটভাটার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। ইটভাটার মৌসুমের চার মাস পার হলেও পরিবেশ অধিদপ্তরের লোকজনকে মাঠ পর্যায়ে কোন পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি।

মহেশপুর উপজেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি আব্দার রহমান বলেন, তারা স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে এই ভাটা চালিয়ে আসছেন। উপজেলার পদ্মপুকুরে রাফিদ ইটভাটার মালিক রুবেল হোসেন দম্ভোক্তি করে বলেন, সাংবাদিকরা ইটভাটা নিয়ে লেখালেখি করলে তার কিছুই হবে না। তিনি আরও জানান, স্থানীয় প্রশাসন তার হাতের ইশারায় চলে। এ ব্যাপারে খুলনা পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালক সাইফুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ঝিনাইদহ জেলায় বেশকিছু ইটভাটায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছি। এই কার্যক্রম অব্যাহত আছে অচিরেই মহেশপুরে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া জেলা প্রশাসনকে ব্যবস্থা নেয়া নিতে অনুরোধ করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজন সরকার বলেন, এ উপজেলায় যারা আইন অমান্য করে লাইসেন্স বিহীন ইটভাটা চালাচ্ছেন খোঁজ-খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।