• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ৯ রবিউল ‍আউয়াল ১৪৪২

মনোহরদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কার্ডিওগ্রাফারের হাতে জিম্মি

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, মনোহরদী (নরসিংদী)

| ঢাকা , শুক্রবার, ২৫ অক্টোবর ২০১৯

নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা-কর্মচারী থেকে শুরু করে সবকিছু জিম্মি হয়ে পড়েছে কার্ডিওগ্রাফার বেলায়েতের হাতে। হাসপাতালের ইনজুরি সার্টিফিকেট বাণিজ্যের পুরোটাই নিয়ন্ত্রণ করেন তিনি। শুধু তাই নয় প্রাইভেট হাসপাতালে রোগী পাঠিয়ে কমিশন বাণিজ্য, ইসিজি এবং আল্ট্রসনোগ্রামের অর্থ আত্মসাত এবং বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে খবরদারি করে অর্থ আদায়ের অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এই হাসপাতালে চলছে তার একক আধিপত্য। ভুক্তভোগীরা জানান, কার্ডিওগ্রাফার বেলায়েত হোসেনের সঙ্গে মনোহরদীর প্রত্যেক প্রাইভেট হাসপাতালের যোগাযোগ রয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যাওয়া রোগীদের সে প্রলুব্ধ করে প্রাইভেট হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। আর এতে সে হাতিয়ে নেয় মোটা অঙ্কের কমিশন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের কয়েকজন স্টাফ জানান, হাসপাতালে যতগুলো ইসিজি এবং আল্ট্রাসনোগ্রাম হয় সেগুলোর ২০ শতাংশ হিসাব দেখান। বাকিগুলো সে নিজেই আত্মসাত করেন। অভিযোগ রয়েছে ইসিজি পরীক্ষার কাগজ এবং আল্টাসনোগ্রামের ফিল্ম সে বাহির থেকে কিনে আনে। সেগুলো দিয়ে সে পরীক্ষার রিপোর্ট দেখান।

হাসপাতালের স্টাফ এবং স্থানীয়রা জানিয়েছেন, কার্ডিওগ্রাফার বেলায়েত চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী পদে মাত্র সাত বছর চাকরি করে প্রায় অর্ধকোটি টাকা দিয়ে ঢাকা বিলাসবহুল ফ্ল্যাট কিনেছেন। মনোহরদী উপজেলা সংলগ্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কিনেছেন চার কাঠা জমি। তাছাড়া তার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট চেক করলে হয়তোবা অনেক টাকা লেনদেনের প্রমাণ পাওয়া যাবে। এ বিষয়ে বেলায়েত হোসেন বলেন, আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ তোলা হয়েছে সেগুলো মিথ্যা। মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. রাশেদুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, বেলায়েতের বিরুদ্ধে আমার কাছে কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যাবস্থা নেয়া হবে।