• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬, ১৩ শাবান ১৪৪১

ভবানীপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র নানা সমস্যায় জর্জরিত

সংবাদ :
  • সাইফুল বারি, শেরপুর (বগুড়া)

| ঢাকা , রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯

জনবল সঙ্কট, তদারকির অভাব, সম্পত্তি বেদখল হওয়াসহ নানা সঙ্কটে চলছে ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি। এতে একজন এমবিবিএস চিকিৎসক থাকলেও সপ্তাহে একদিনও আসেন না। জানা গেছে, শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের জনসাধারণের স্বাস্থ্যসেবার জন্য ভবানীপুর বাজারের পার্শ্বেই ৩৯১নং দাগে ৭৬ শতাংশ জমির উপর স্থাপন করা হয় ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি। ১৯৯৫ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি এর দ্বিতল ভবনের উদ্বোধন করেন তৎকালীন এমপি। উদ্বোধনের পর থেকেই মিলছে না কাক্সিক্ষত স্বাস্থ্যসেবা। বর্তমানে স্বাস্থ্যবিভাগ কৃর্তপক্ষের অবহেলা ও উদাসীনতায় চরম দুরাবস্থা স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির। যেখানে এমবিবিএস ডাক্তারের আবাসিক ব্যবস্থাসহ রোগীদের সেবার উন্নত ব্যবস্থা থাকার কথা সেখানে মিলছে না নূন্যতম স্বাস্থ্য সেবা। শুধুমাত্র একজন উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (স্যাকমো) দিয়েই চলছে ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি।

কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার রহমতুল বারী খন্দকার রাসেল জানান, স্বাস্থ্য কেন্দ্রে একজন এমবিএসসি চিকিৎসক, ১ জন ফার্মাসিস্ট, ১ জন পিয়ন ও ১ জন এসএসিএমও (স্যাকমো) এর পদ থাকলেও তিনি ছাড়া বাকি পদগুলো বর্তমানে শুন্য রয়েছে। এতে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে ২.৩০ পর্যন্ত রোগীদের প্রাথমিক সেবা ও ওষুধ দেয়া হয়। এছাড়া সপ্তাহে একদিন পরিবার পরিকল্পনার সেবা ও পরামর্শ দেয়া হয়।

এদিকে স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে পড়েছে। এর জায়গা দখল করে বাচ্চু মিয়া নামের এক ব্যক্তি দীর্ঘদিন হলো পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন। উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভেতরে স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত নাগরিক সেবার কোন তালিকা টাঙ্গানো নেই। অথচ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সেদিকে কোন নজর নেই। এলাকাবাসীরা জানান, কেন্দ্রেটিতে প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা পেলে ১৬ কিলোমিটার দূরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যেতে হতো না।

এ ব্যাপারে ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ জানান, ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রেটিতে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা মিলছে না।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. লিয়াকত আলী সেখ জানান, বিষয়টি আমার জানা ছিল না। তবে জনগণ যাতে কাক্সিক্ষত স্বাস্থ্যসেবা পায় সেটা নিশ্চিত করতে ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির অসঙ্গতি দূর করতে স্বাস্থ্য বিভাগের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।