• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬, ১৪ শাবান ১৪৪১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভুয়া চিকিৎসা সনদ তিন ডাক্তারের বিরুদ্ধে মামলা

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

| ঢাকা , বুধবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৩চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ভুয়া জখমী সনদ দেয়ার অভিযোগে জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক একেএম কামরুজ্জামান মামুন বাদী হয়ে সোমবার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্র্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় আসামি করা হয় ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার নাফিজ মো: খান রন্টি,মামুনুর রহমান ও মকবুল হোসেনকে। আদালত অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করার জন্যে সিভিল সার্জনকে নির্দেশ দিয়েছেন। নাসিরনগর ফুলপুর গ্রামের মো. সামছুল কিবরিয়া রাজা ২০১৮ সালের ২২ ডিসেম্বর ঘটনার সময় দেখিয়ে সাবেক চেয়ারম্যান নূরপুর গ্রামের মো. আবদুল হান্নানসহ অন্যদের বিরুদ্ধে এবছরের ২৫ শে ডিসেম্বর নাসিরনগর থানায় বিস্ফোরক আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় মো. সামছুল কিবরিয়া রাজা, মিজানুর রহমান মেম্বার, মো. এইচ এম শিবলী চৌধুরী, মো. ইব্রাহিম মিয়া, নাছির উদ্দিন রানা ও রায়হান ভূইয়াকে জখমী দেখান। মামুনের মামলার আর্জিতে অভিযোগ করা হয়Ñ নাসিরনগর থানায় ২০১৮ সালের ২৫ ডিসেম্বর দায়ের করা মামলায় (নং ১৫) বর্ণিত কোন ঘটনা ঘটেনি।

তারপরও মামলার বাদী মো. সামছুল কিবরিয়া রাজা ডাক্তারগণকে বাধ্য করে বাস্তবে কারও কোন জখম না থাকার পরও তাদের জখমের মেডিকেল সনদ নেন। ডাক্তারদের দেয়া সনদে মিজানুর রহমান মেম্বারের মাথার বাম পাশে ধারালো অস্ত্রের জখম, মো. ইব্রাহিমের বাম পায়ের উরুতে জখমের কথা উল্লেখ করা হয়। কিন্তু মেডিকেল সার্টিফিকেট দৃষ্টে দেখা যায় তাদের আঘাতের সমর্থনে কোন এক্সরে বা সিটিস্ক্যান রিপোর্ট নেই। তারা চিকিৎসার জন্যে হাসপাতালে ভর্তি না হওয়ায় সহজেই প্রতীয়মান হয় মেডিকেল সার্টিফিকেট মিথ্যা ও বানোয়াট। ওই মামলার আসামিদের হয়রানি করার জন্যে জাল মেডিকেল সার্টিফিকেট ইস্যু করা হয় বলে মামলার আবেদনে বলা হয়। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে তা তদন্তের জন্যে সিভিল সার্জনকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও মামলার বাদী একেএম কামরুজ্জামান মামুন।