• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ১৪ সফর ১৪৪২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৭

প্রশাসনের নির্দেশেও বন্ধ হচ্ছে না অবৈধ ইটভাটা

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, বটিয়াঘাটা (খুলনা)

| ঢাকা , বুধবার, ২৫ মার্চ ২০২০

image

বটিয়াঘাটা (খুলনা) : সুরখালী ইউনিয়নের গজালীয়া গ্রামের ফসলি জমিতে গড়ে তোলা অবৈধ ইটভাটা -সংবাদ

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশকে উপেক্ষা করে বটিয়াঘাটা উপজেলার সুরখালী ইউনিয়নের গজালীয়া গ্রামের ফসলী জমিতে লাইসেন্স বিহীন ইট ভাটা চালু রয়েছে এখনও। জেলা প্রশাসক খুলনা কার্যালয়ের সাধারণ শাখার ২৬/০২/২০২০ তারিখে ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.০০৪.০৪.২০-১১০ নং স্মারকপত্র ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের ১১/০২/২০২০ তারিখের ০৫.৪৪.৪৭১২.০০০.১১.০০৭.২০-১৬১ নম্বর স্মারকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম, শারমিন পারভীন রুমা, পিতা আব্দুল লতিফ জমাদ্দার, সাং- ডুমুরিয়া, ডাকঘর- ডুমুরিয়া খুলনা কে ২০-০২-২০২০ তারিখে এক নোটিসে জানানো হয়, পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ও জেলা প্রশাসক কর্তৃক ইট পোড়ানো লাইসেন্স প্রাপ্তি ব্যতীত বটিয়াঘাটা উপজেলাধীন সুরখালী ইউনিয়নের গজালীয়া গ্রামের একটি ইটভাটা স্থাপন ও পরিচালনা করছেন। ইট প্রস্তুত, ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৩ (সংশোধিত-২০১৯) বিধান মতে লাইসেন্স ব্যতীত ইট পেড়ানো দ-নীয় অপরাধ। ইতোপূর্বে এ বিষয়ে আপনার কাছে জানতে চাওয়া হলে আপনি পরিবেশের ছাড়পত্র ও লাইসেন্স প্রাপ্তির কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে মর্মে জবাব দাখিল করেছেন। কিন্তু পরিচালক, পরিবেশ অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, খুলনার কার্যালয়ে বর্ণিত বিষয়ে কোন কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন নেই মর্মে দাপ্তরিক সূত্রে জানা যায়। ফলে আপনার দাখিলকৃত জবাব সন্তোষজনক নয়। উল্লেখ্য যে, জেলা প্রশাসক, খুলনা মহোদয়ের কার্যালয়ে সাধারণ শাখার ২৬-০২-২০২০ তারিখের ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.০০৪.০৪.২০-১১০ নং স্মারকপত্রে আপনার ইট ভাটার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করেছেন। এমতাবস্থায়, পত্র প্রাপ্তি মাত্র আপনার ইট ভাটার সকল কার্যক্রম বন্ধ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো। অন্যথায় আপনার বিরুদ্ধে মোবাইল কোট পরিচালনা পূর্বক বিধি মোতাবেক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অথচ এই চিঠি পাওয়ার ১ মাস অতিক্রান্ত হওয়া সত্ত্বেও অধ্যাবধি ইট ভাটায় ইট পোড়ানো হচ্ছে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী পুনরায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুনর্আবেদন করেছেন।

বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলামের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ইট ভাটার মালিক লাইসেন্স প্রাপ্তির জন্য পুনরায় জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেছেন, যে কারণে পরবর্তী সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাচ্ছে না।